পাতা:কাহিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/২১

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
১৮
কাহিনী


হে মাের অমল কিশাের তাপস,
কোথায় তােমারে আড়ালে রাখি!
আমার কাতর অন্তর দিয়ে
ঢকিবারে চাই তােমার আঁখি।
হে মাের প্রভাত, তােমারে ঘেরিয়া
পারিতাম যদি দিতাম টানি
উষার রক্ত মেঘের মতন
আমার দীপ্ত শরমখানি।
ও আহুতি তুমি নিয়াে না, নিয়াে না,
হে মাের অনল, তপের নিধি-
আমি হয়ে ছাই তােমারে লুকাই
এমন ক্ষমতা দিল না বিধি!
ধিক্‌ রমণীরে, ধিক্‌ শতবার,
হতলাজ বিধি তােমারে ধিক্‌!
রমণীজাতির ধিক্কারগানে
ধ্বনিয়া উঠিল সকল দিক।
ব্যাকুল শরমে অসহ ব্যথায়
লুটায়ে ছিন্নলতিকাসমা
কহিনু তাপসে, ‘পুণ্যচরিত,
পাতকিনীদের করিয়ো ক্ষমা।
আমারে ক্ষমিয়াে, আমারে ক্ষমিয়ো,
আমারে ক্ষমিয়াে করুণানিধি।
হরিণীর মতাে ছুটে চলে এনু
শরমের শর মর্মে বিঁধি।