পাতা:কাহিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৩৬

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৩৩
গান্ধারীর আবেদন

ভীষ্মপিতামহে- যদি তারা বিজ্ঞবেশে
হিতকথা ধর্মকথা সাধু-উপদেশে
নিন্দায় ধিক্কারে তর্কে নিমেষে নিমেষে
ছিন্ন ছিন্ন করি দেয় রাজকর্মডাের,
ভারাক্রান্ত করি রাখে রাজদণ্ড মাের,
পদে পদে দ্বিধা আনে রাজশক্তিমাঝে,
মুকুট মলিন করে অপমানে লাজে,
তবে ক্ষমা দাও পিতৃদেব, নাহি কাজ
সিংহাসনকণ্টকশয়নে- মহারাজ,
বিনিময় করে লই পাণ্ডবের সনে,
রাজ্য দিয়ে বনবাস, যাই নির্বাসনে।
ধৃতরাষ্ট্র
হায় বৎস, অভিমানী! পিতৃস্নেহ মাের
কিছু যদি হ্রাস হত শুনি সুকঠোর
সুহৃদের নিন্দাবাক্য, হইত কল্যাণ।
অধর্মে দিয়েছি যােগ, হারায়েছি জ্ঞান,
এত স্নেহ। করিতেছি সর্বনাশ তাের,
এত স্নেহ। জ্বালাতেছি কালানল ঘাের
পুরাতন কুরুবংশ-মহারণ্যতলে-
তবু, পুত্র, দোষ দিস স্নেহ নাই ব’লে?
মণিলােভে কালসর্প করিলি কামনা,
দিনু তােরে নিজহস্তে ধরি তার ফণা
অন্ধ আমি। অন্ধ আমি অন্তরে বাহিরে
চিরদিন- তােরে লয়ে প্রলয়তিমিরে