পাতা:কাহিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৫৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৫০
কাহিনী


বধূহস্ত হতে খসি পড়ে শত শত
চুতলতাকুঞ্জবনে মঞ্জরীর মত
ঝঞ্ঝাবাতে। বৎসে, ভাঙিয়ো না বদ্ধ সেতু।
ক্রীড়াচ্ছলে তুলিও না বিপ্লবের কেতু
গৃহমাঝে। আনন্দের দিন নহে আজি।
স্বজনদুর্ভাগ্য লয়ে সর্ব অঙ্গে সাজি
গর্ব করিয়ো না মাতঃ। হয়ে সুসংযত
আজ হতে শুদ্ধচিত্তে উপবাসব্রত
কয়ে আচরণ—বেণী করি উন্মোচন
শান্তমনে করাে, বৎসে, দেবতা-অৰ্চন।
এ পাপ সৌভাগ্যদিনে গর্ব-অহংকারে
প্রতি ক্ষণে লজ্জা দিয়ো নাকো বিধাতারে।
খুলে ফেলো অলংকার, নবরক্তাম্বর;
থামাও উৎসববাদ্য, রাজ-আড়ম্বর,
অগ্নিগৃহে যাও, পুত্রী, ডাকে পুরােহিতে—
কালের প্রতীক্ষা করো শুদ্ধসত্ত্ব চিতে।

(ভানুমতীর প্রস্থান)

দ্রৌপদী-সহ পঞ্চপাণ্ডবের প্রবেশ


যুধিষ্ঠির


আশীর্বাদ মাগিবারে এসেছি জননী,
বিদায়ের কালে।

গান্ধারী


সৌভাগ্যের দিনমণি
দুঃখরাত্রি-অবসানে দ্বিগুণ উজ্জ্বল