পাতা:কাহিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/৫৪

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
৫১
গান্ধারীর আবেদন


উদিবে হে বৎসগন। বায়ু হতে বল,
সূর্য হতে তেজ, পৃথ্বী হতে ধৈর্যক্ষমা
করো লাভ, দুঃখব্রত পুত্র মোর! রমা
দৈন্যমাঝে গুপ্ত থাকি দীনছদ্মরূপে
ফিরুন পশ্চাতে তব সদা চুপে চুপে,
দুঃখ হতে তােমা-তরে করুন সঞ্চয়
অক্ষয় সম্পদ। নিত্য হউক নির্ভয়
নির্বাসনবাস। বিনা পাপে দুঃখভােগ
অন্তরে জ্বলন্ত তেজ করুক সংযােগ
বহ্নিশিখাদগ্ধ দীপ্ত সুবর্ণের প্রায়।
সেই মহাদুঃখ হবে মহৎ সহায়
তােমাদের। সেই দুঃখে রহিবেন ঋণী
ধর্মরাজ বিধি; যবে শুধিবেন তিনি
নিজহস্তে আত্মঋণ তথন জগতে
দেব নর কে দাঁড়াবে তােমাদের পথে!
মাের পুত্র করিয়াছে যত অপরাধ
খণ্ডন করুক সব মাের আশীর্বাদ,
পুত্ৰাধিক পুত্রগণ। অন্যায় পীড়ন
গভীর কল্যাণসিন্ধু করুক মন্থন।
দ্রৌপদীকে আলিঙ্গন-পুর্বক
ভূলুণ্ঠিতা স্বর্ণলতা হে বৎসে আমার,
হে আমার রাহুগ্রস্ত শশী! একবার
তােলাে শির, বাক্য মাের করো অবধান।
যে তােমারে অবমানে তারি অপমান