প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (চতুর্থ খণ্ড).pdf/৭২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ল্যাবরেটরি ԱյՅՓ নি? সেইজন্যেই কি তুমি আমাকে ওর বেশি কাছে আনাগোনা করতে বারণ করছ, পাছে চেনাশোনার ঘোষ লেগে পালিশ মন্ট হয়ে যায় ?” “দেখ নীলা, আমি তোকে বলে দিচ্ছি তোর সঙ্গে ওর বিয়ে কিছুতেই হতে পারবে না।” 豪 “তা হলে আমি যদি মোতিগড়ের রাজকুমারকে লিয়ে করি ?” “ইচ্ছা হয় তো করিস।” “সাবিধে আছে, তার তিনটে বিয়ে, আমার দায় অনেকটা হালকা হবে, আর সে মদ খেয়ে ঢলাঢলি করে নাইটক্লাবে— তখন আমি অনেকটা ছটি পাব।” “আচ্ছা বেশ, সেই ভালো। রেবতীর সঙ্গে তোর বিয়ে হতে দেব না।” "কেন, তোমার সার আইজাক নিউটনের বৃদ্ধি আমি ঘালিয়ে দেব মনে কর?” “সে তক থাক, যা বললাম তা মনে রাখিস।” “উনি নিজেই যদি হ্যাংলাপনা করেন ?” “তা হলে এ পাড়া তাকে ছাড়তে হবে—তোর অন্নে তাকে মানষে কারস, তোর বাপের তহবিল থেকে এক কড়িও সে পাবে না।” “সবনাশ ! তা হলে নমস্কার সার আইজাক নিউটন!” সেদিনকার পালা সংক্ষেপে এই পর্যন্ত । ه ”চৌধুরীমশায়, আর সবই চলছে ভালো, কেবল আমার মেয়ের ভাবনার সস্থির হতে পারছি নে। ও যে কোন দিকে তাক করতে শরে করেছে বঝেতে পারছি নে ৷” চৌধুরী বললেন, “আবার ওর দিকে তাক করছে কারা সেটাও একটা ভাববার কথা। হয়েছে কি, এরই মধ্যে রটে গেছে ল্যাবরেটরি রক্ষার জন্যে তোমার স্বামী অগাধ টাকা রেখে গেছে। মুখে মুখে তার অঙ্কটা বেড়েই চলেছে। এখন রাজত্ব আর রাজকন্যা নিয়ে বাজারে একটা জয়োখেলার সন্টি হয়েছে।" “রাজকন্যাটি মাটির দরে বিকোবে তা জানি, কিন্তু আমি বেচে থাকতে রাজত্ব সঙ্গতায় বিকোবে না।" “কিন্তু লোকের আমদানি শরা হয়েছে। সেদিন হঠাৎ দেখি, আমাদেরই অধ্যাপক মজুমদার ওরই হাত ধরে বেরিয়ে এল সিনেমা থেকে। আমাকে দেখেই ঘাড় বেকিয়ে নিল। ছেলেটা ভালো ভালো বিষয়ে বস্তৃতা দিয়ে বেড়ায়, দেশের মঙ্গলের দিকে ওর বলি খুব সহজে খেলে। কিন্তু সেদিন ওর বাঁকা ঘাড় দেখে স্বদেশের জন্যে ভাবনা झल ।” “চৌধুরীমশায়, আগল ভেঙেছে।" “ভেঙেছে বই-কি। এখন এই গরিবকেই নিজের ঘটিবাটি সামলাতে হবে ।” “মজুমদার-পাড়ায় মড়ক লাগে লাগকে, আমার ভয় রেবতীকে নিয়ে।" চৌধুরী বললেন, "আপাতত ভয় নেই। খাব ডুবে আছে। কাজ করছে খৰে চমৎকার।"