প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:গল্পগুচ্ছ (দ্বিতীয় খণ্ড).djvu/৩০৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মাল্যদান 4ఏ& সোনার হার দিল। যতীন সেই হারছড়াটি লইয়া আস্তে আস্তে কুড়ানির মাথা তুলিয়া ধরিয়া তাহাকে পরাইয়া দিল। ভোরের আলো যখন কুড়ানির মাখের উপর আসিয়া পড়িল তখন সে আলো সে আর দেখিল না। তাহার অম্লান মাখকাতি দেখিয়া মনে হইল, সে মরে নাই—কিন্তু সে ষেন একটি অতলপশ সখীবনের মধ্যে নিমগ্ন হইয়া গেছে। যখন মতদেহ লইয়া যাইবার সময় হইল তখন পটল কুড়ানির বকের উপরে পড়িয়া কাঁদিতে কাঁদিতে কহিল, "বোন, তোর ভাগ্য ভালো। জীবনের চেয়ে তোর মরণ সখের।” যতীন কুড়ানির সেই শান্তনিধি মৃত্যুচ্ছবির দিকে চাহিয়া ভাবিতে লাগিল, যাঁহার ধন তিনিই নিলেন, আমাকেও বঞ্চিত করিলেন না।’ চৈত্র ১৩০৯