পাতা:গৌতমীয়-তন্ত্রম্‌.djvu/২২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


cशोउभौब्रख्खम् >ዓ শৌনকাপ্তাশ্চ মুনয়স্তথান্তে দেবমুখ্যকাঃ । মন্ত্ররাজপরিজ্ঞানাৎ সপ্তস্তৎসাম্যতাং গতা: ॥ ৬৯ ৷ কৃষ্ণশব্দশ্চ সত্ত্বার্থে পশ্চ নন্দস্বরূপকঃ । সুখরুপে ভবেদাত্মা ভাবানন্দময়স্ততঃ ॥ ৭০ } গোশদেন জ্ঞানমুক্তং তেন বিন্দেত তৎপদম্ । গোশস্বীদ্বেদ ইত্যুক্তস্তেন বা লভতে বিভুম্ ॥ ৭১ ৷ এবং তে কথিত মন্ত্র-বাসনা মুনিসত্তম। এতজ জ্ঞানান্থভাবেন জীবন্মুক্তে ন চাস্তথা ॥ ৭২ ৷ সৰ্ব্বেষাং মন্ত্ররাশীনাং মুখ্যোইয়ং বরদো মন্থ । পুরাণতীর্থানি সৰ্ব্বানি স্নাতানি তেন ধীমতী ॥ ৭৩ ৷ সিদ্ধক্ষেত্রাণি সৰ্ব্বানি সম্যক্ কৃতানি তেন বৈ ৷ সকৃষ্ণুচরণেনাস্ত সত্যমেব ন চান্তর্থী ॥ ৭৪ ৷ কিমন্তেন বহুক্তেন স্মরণাচ্চাস্ত মন্ত্রবিৎ। । জীবন্মুক্তে ন সন্দেহে বিষ্ণুরেব ন সংশয় ॥ ৭৫ ৷ বাঞ্ছাচিস্তামণিস্বরূপ ॥ ৬৫-৬৮ ॥ শৌনকাদি ঋষিসকল ও অস্তান্ত দেবমুখ্যগণ এই মন্ত্র জ্ঞাত হইয়াই সন্ত শ্ৰীহরির সাম্যতা প্রাপ্ত হইয়াছেন। কৃষ্ণশক সত্বার্থক। তদন্তর্বর্তী শকার আনন্দস্বরূপ। অতএব তার জ্ঞানানন্দময় পরমাত্মাই উপলদ্ধ হইতেছেন। গে1শব্দে জ্ঞানমুক্তকে বোধ করায় । তাদৃশ মোক্ষ প্রাপ্তি হইলেই পরমাত্মজ্ঞান হয় ধলিয়াই তাহার নাম গোবিন্দ । অথবা গো-শব্দে বেদ ; ঐ বেদ দ্বারাই নরগণ বিভু পরমাত্মাকে লাভ করেন, তাই তাহার নাম গোবিন । মুনিসভয, আমি তোমাকে এই মন্ত্রার্থও বলিলাম । সমস্ত মন্ত্রের রাজা এই বরদ মন্ত্র । বহু তীর্থস্নান ও বহু সিদ্ধ-ক্ষেত্রে ভ্রমণ করিয়া কি হইবে ?