পাতা:গৌতমীয়-তন্ত্রম্‌.djvu/৩৮৩

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গৌতমীয়তন্ত্রম براہ عا পুনশ্চীমুষ্ঠিতো মন্ত্রে। যদি সিদ্ধির্ণ জয়তে। পুনস্তেনৈব কৰ্ত্তব্যং ততঃ সিদ্ধে ন সংশয়ঃ ॥ ২৪ ॥ পুন: সোইমুষ্টিতে মন্ত্রো ঘদি সিদ্ধিৰ্ন জায়তে। উপায়াস্তত্ৰ কৰ্ত্তব্যঃ সপ্ত শঙ্করভাষিতাঃ ॥ ২৫ ॥ ভ্ৰামণং রোধনং বগুং পীড়নং পোষশোষণম্। দহনাস্তং ক্ৰমাৎ কুৰ্য্যাৎ ততঃ সিদ্ধে ভবেদধ্রুবম্ ॥ ২৬ ॥ ভ্রমণং বারুণে বীজে গ্ৰথনং ক্রমযোগতঃ । রোচনাগুরুসংমিশ্রং এলাকপূরকুঙ্কুমৈঃ ॥ ২৭ ॥ উশীরচন্দনীভ্যাস্তু মন্ত্ৰং সংগ্রথিতং লিখেৎ। । ক্ষীরাজ্যমধুতোয়ানাং মধ্যে তল্লিখিতং ক্ষিপেৎ ॥ ২৮ ॥ পূজনাজ্জপনাদ্ধোমাদভ্রামিতঃ সিদ্ধিদে ভবেৎ । ভ্রামিতো যদি নো সিধ্যেৎ রোধনং তস্ত করয়েৎ ॥২৯ করিলে নিশ্চয়ই সিদ্ধ হইবে । পুনরায় অনুষ্ঠিত মন্ত্র যদি সিদ্ধ না হয়, পুনরায় তদ্বমুরূপ অনুষ্ঠানে প্রবৃত্ত হইলে নিশ্চয়ই সিদ্ধ হইবে। ইহাতেও যদি মন্ত্র সিদ্ধ না হয়, তাছা হইলে মহাদেবের কথিত সপ্তবিধ উপায় আশ্রয় করিক্তে হইবে। ভ্রামণ, রোধন, বগু, পীড়ন, পোষণ, শোষণ ও দছন—এই সপ্তবিধ উপায়। এই সকল উপায় যথাক্রমে প্রযুক্ত হইলে নিশ্চয়ই সিদ্ধিলাভ হয়। বারুণীজে ভ্ৰামণ ও ক্রমযোগে গ্ৰথন বিধান কৱিবে । রোচনা, অগুরু, এলা, কপূর, কুঙ্কুম, উশীর ও চন্দন দ্বারা সংগ্রথিত মন্ত্র লিখিবে এবং ক্ষীর, আজ্য, মধু ও জলের মধ্যে পর পর ইঙ্গ নিক্ষেপ করিবে ; পরে পূজা, জপ ও হোম করিলে সিদ্ধিসাধন হইয়া থাকে। ইহার নাম ভ্রামণ। ভ্রামিত হইলেও যদি মন্ত্রসিদ্ধি