প্রধান মেনু খুলুন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
২৫
চাঁদের পাহাড়

উঁচিয়ে উপরি উপরি দু’বার গুলি করলে । গুলি লেগেচে কিনা বোঝা গেল না, কিন্তু তখন অশ্বতর মাটীতে লুটিয়ে পড়েচে — ধূসর বর্ণের জানোয়ারটা পলাতক । শঙ্কর পরীক্ষা করে দেখলে অশ্বতরের কাঁধের কাছে অনেকটা মাংস ছিন্ন ভিন্ন, রক্তে মাটী ভেসে যাচ্চে । যন্ত্রণায় সে ছট্‌ফট্‌ করচে । শঙ্কর এক গুলিতে তার যন্ত্রণার অবসান করলে ।

 তারপর সে তাঁবুতে ফিরে এল । সাহেব বল্লে— সিংহ নিশ্চয়ই জখম হয়েচে । বন্দুকের গুলি যদি গায়ে লাগে তবে দস্তুর মত জখম তাকে হতেই হবে । কিন্তু গুলি লেগেছিল তো? শঙ্কর বল্লে — গুলি লাগালাগির কথা সে বলতে পারে না । বন্দুক ছুঁড়েছিল,এইমাত্র কথা । লোকজন নিয়ে খোঁজাখুঁজি করে দু তিন দিনেও কোনো আহত বা মৃত সিংহের সন্ধান কোথাও পাওয়া গেল না ।

 জুন মাসের প্রথম থেকে বর্ষা নাম্‌ল । কতকটা সিংহের উপদ্রবের জন্যে, কতকটা বা জলাভূমির সান্নিধ্যের জন্যে জায়গাটা অস্বাস্থ্যকর হওয়ায় তাঁবু ওখান থেকে উঠে গেল ।

 শঙ্করকে আর কনষ্ট্রাক্‌সন তাঁবুতে থাকতে হোল না । কিসুমু থেকে প্রায় ত্রিশ মাইল দূরে একটা ছোট ষ্টেশনে সে ষ্টেশন মাষ্টারের কাজ পেয়ে জিনিষ পত্র নিয়ে সেইখানেই চলে গেল ।