পাতা:চিঠিপত্র (দ্বাদশ খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১২৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


একান্ত মেহের পাত্রী এবং প্রমথকে সাহিত্যিক ও মনস্বী বলে বিশেষ শ্রদ্ধা করি । সেই সবুজপত্রকে দীর্ঘকাল আমি উপবাসী রেখেচি অথচ অামি মনে মনে জানি তারা সহায়তা আশা করেই দ্বিতীয়বার আসরে নেমেছিলেন । তার একটা কারণ, আমার সময় ও শক্তির প্রাচুর্য্য এখন নেই। দ্বিতীয় কারণ বিশ্বভারতীর দাবিদ্রো আমি আজ দরিদ্র । আমাকে ভিক্ষণ কেউ দেয় না, উপাজ্জন করতে হয় । সবুজপত্র থেকে বার বার আমার কাছে একটা বড়ো উপন্যাস দাবী করা হয়েছিল কিন্তু সেটা বর্তমান অবস্থায় দেওয়া আমার পক্ষে কঠিন হবে জেনেই উপন্যাস লেখাই আমি সুদীর্ঘকাল বন্ধ রেখেছিলুম। প্রমথ যদি বিচিত্রার ভার না নিতেন তাহলে আমি উপন্যাস কখনোই লিখতুম না । কিন্তু যখনি এই উপন্যাস লিখতে বসেচি তখনি আমার মনে হয়েচে প্রবাসীর জন্যে একটা উপন্যাস লিখতেই হবে । অর্থে পার্জনের জন্যে নয়, এতকাল বিরুদ্ধতার ভিতর দিয়েও প্রবাসীর প্রতি ( আপনার প্রতি ব্যক্তিগত শ্রদ্ধার খাতিরেই) যে মনোভাব পোষণ করে এসেচি সেইটেকে রক্ষা করবার জন্তে । আমার পক্ষে, এ বয়সে একসঙ্গে কলমের রথে জুড়ি গল্প ঠাকানো প্রায় অসাধা বললেই হয় কিন্তু তাও আমার সঙ্কল্পের মধো ছিল । একদা প্রত্যক্ষত আপনার মধ্যে দিয়েই প্রবাসী ও মডারন রিভিয়ুর সঙ্গে আমার সাহিত্যিক সম্বন্ধ ছিল । X e?