পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১০০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


હૈં শাস্তিনিকেতন সুখদুঃখের ঢেউ কাটিয়েই ত আমাদের জীবন বেয়ে নিয়ে চলতে হবে। এই কথাটা সৰ্ব্বদা মনে রাখতে হবে সেই ঘটনাগুলোই চরম সত্য নয় । ব্যথা এড়াব এমন সাধ্য আমাদের নেই কিন্তু তাকে সত্যরূপে গ্রহণ করব এটা আমাদের সাধনার অঙ্গ । যিনি চিরন্তন তাকে যদি দৃঢ় নিষ্ঠার সঙ্গে মনের মধ্যে রাখতে পারি তাহলে যা চঞ্চল সে আমাদের আর আঘাত করতে পারে না। আমরা নিজেকে যখনই বড় করে দেখি তখনি নিজের ভার অত্যন্ত বেড়ে ওঠে— তখনি তুঃখসুখের ঢেউ জীবনকে বড় বেশি তোলপাড় করে তোলে — নিজেকে এবং প্রতিদিনের সমস্ত তুচ্ছতাকে নিজের সত্য-আপন থেকে বিচ্ছিন্ন করে তাকে দূরে রেখে দেখলে জীবনযাত্রা সহজ হয়। যে দুঃখে আমরা মরি সে আমাদের নিজের হাতের মার। তার মানে এ নয় যে সেই দুঃখের ঘটনা আমাদের নিজের স্মৃষ্টি, তার মানে এই যে, সেই ঘটনাকে আঘাতস্বরূপে নেওয়া আমাদের নিজেরই কাজ । আমি বোধ হয় জানুয়ারি মাসের শেষ তারিখে কলকাতায় যাব । ইতি ২৫ পৌষ ১৩২৪ শুভাকাজক্ষী শ্রীরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ԵԵ