পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* 3 \o o জানুয়ারি 〉ぬ>& હૈં কলিকাতা কল্যাণীয়াসু _ মাতঃ, কিছুকাল হইতে প্রত্যহই আমাকে বিশেষ ব্যস্ত থাকিতে হইয়াছিল— সেইজন্য আজ অত্যন্ত পরিশ্রান্ত আছি । কিন্তু শীঘ্র আর সময় পাইবনা বলিয়া তোমাকে আজই পত্র লিখিতে বসিলাম । । তুমি যে লেখাটি পাঠাইয়াছ তাহাতে তোমার হৃদয়ের একটি বেদনা সুস্পষ্ট প্রকাশ পাইয়াছে, সেইজন্য এই লেখা আমার বড় ভাল লাগিল । জাতীয় দুৰ্গতির দিনে আমাদের যিনি বিধাতা তিনি প্রলয়ের বিধাতা— তিনি আমাদের কখনই সুখে রাখিবেননা ও স্থির রাখিবেন না— আমাদিগকে তিনি নানা দিকেই আঘাত করিবেন— অনেক পরিচিতকে বিদায় করিতে হইবে এবং অনেক অপরিচিতকে আহবান করিয়া আনিতে হইবে । তাহার যে দুঃখ সে আমাদিগকে স্বীকার করিতেই হইবে – কেননা সমস্ত জাতিকে জড়তার মধ্যে ডুবিয়া মরিতে দিতে পারি না । আমাদের প্রত্যেকের উপরেই নবযুগের পরম দায়িত্ব রহিয়াছে— আসক্তির বন্ধন কাটিতেই হইবে, মুক্তির জন্য জাগিতেই হইবে— তোমরা দেশের মা, তোমরা দেশকে পিছনের দিকে টানিয়ে না— নূতনের মধ্যে অনেক আশঙ্কা অনেক বিপদ আছে তবু সেই যুগবিধাতার শঙ্খধ্বনি শুনিয়া তোমাদের সন্তানদিগকে যাত্রার পথেই অগ্রসর 8や2