পাতা:চিঠিপত্র (সপ্তম খণ্ড)-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৮৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ē শান্তিনিকেতন মাতঃ, নানা ঝঙ্কাটের মধ্যে ব্যস্ত ছিলাম— এখনো চোকে নাই – শেষ পৰ্য্যন্তই চুকিবেনা— শরীর মন বড় ক্লান্ত – তাই কয় দিন তোমার চিঠিখানির উত্তর দিতে পারি নাই। কাল কলিকাতায় যাইব— সেখানে গোলমালের মাত্রা বেশি – তাই আজ একটু সময় করিয়া তোমাকে লিখিতে বসিলাম। কাজ করিবার ক্ষমতা এখনো আছে অথচ কাজ করিবার উপকরণগুলো অনেকট জীর্ণ হইয়া আসিয়াছে সেইজন্যে ফুটে নৌকো বাহিবার কাজটা বেশি ক্লাস্তিকর হইয়াছে— অথচ সকলেরই দাবী মিটাইতে হয়, কেননা এখনো একেবারে ফতুর হই নাই —তাই আমার অবস্থা সেই ধনীর মত যার একদিকে কিছু ধন আছে আর একদিকে ঋণও প্রচুর— তার পক্ষে হাল ছাড়িয়া দেওয়াও শক্ত, হাল ধরিয়া থাকাও সহজ নয়। এই সকল কারণেই এক-একবার মনে করি বহু দূরে চলিয়া যাইব— কিন্তু সে সব চেষ্টা মিথ্যা । মনিবের কাছে ছুটি মঞ্জুর না হইলে ঘরেও ছুটি নাই বাহিরেও ছুটি নাই । | আমি যে অনাদর ও আঘাত পাই তাহার মধ্যে আমার কল্যাণ আছে কিন্তু তোমাদের কাছ হইতে মাঝে মাঝে যে স্নিগ্ধ শ্রদ্ধাটুকু পাইয়া থাকি তাহার মধ্যে ঈশ্বরের দয়া অনুভব করি । ס\ף