পাতা:চিত্রাবলি - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিত্রাবলি । དྷུ་” যদুপতি মনে মনে ঈষৎ হাসিয়া ধীরে ধীরে উত্তর দিলেন,— “না দিদি ! কমলা পত্র লিখে সব উলটে দিয়েছে। গহনার অদল-বদল হয়ে গিয়েছে !” বিন্ধ্যবাসিনী ভাবিলেন,—“বোধ হয় কমলা নূতন কিছু গহনার ফর্মাস করেছিল । তাই আমার পছন্দ-মত সব গহনাগুলি গড়ান হয় নাই ।“ ত না হউক, তাহাতে বিন্ধ্যবাসিনী কিন্তু অণুমাত্রও ক্ষুব্ধ বা দুঃখিত হইলেন না। কমলার প্রতি র্তাহার ঈর্ষা-দ্বেষ তো একটুও নাই! কমলা যাহাতে সুখী হয়, কমলার যাহা পছন্দ-সই হয়,—র্তাহারও তো তাঁহাই ইচ্ছা ! বিন্ধ্যবাসিনী তাই উত্তর দিলেন,—“গহনার অদল-বদল যাই হ’ক, কমলার পছন্দ হ'লেই হ’লে ?” - যদুপতি আনন্দের স্বরে কহিলেন,—“তবে দিদি ! নিশ্চিন্ত হও । কমলা যা ভালবাসে, এবার সেই গহনাই এনেছি। খানিক পরেই দেখতে পাৰে,—সে গহনায় ঘর-সংসার কত छेच्छ्ण झग्न ” কমলা পাশ্বে বসিয়া ছিল । সে মনে মনে যদুপতিকে শত ধন্যবাদ করিতে লাগিল । যদুপতি তখন একে একে ভগিনীকে সমস্ত কথা খুলিয়া বলিলেন। বলিলেন,-কি প্রকারে তাহার দুই হাজার টাকা জমিয়াছিল। বলিলেন,—সেই টাকার গহন গড়াইবার জন্য 缸 — வி وا ه ډ؟