পাতা:চিত্রাবলি - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/১২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চিত্ৰাৰলি । “暇 হয়েছে। শচীন্দ্র আর আমার নেই ; আমার পক্ষে শচীন্দ্র আজ মরেছে ” - 镜 রায় মঞ্চাশয় --“অমন অমঙ্গলের কথা বল কেন ? পিতা ছ’য়ে পুত্রের অশুভ কামনা করতে আছে কি ?” ইরিচরণ —“শচীন্দ্র আমার পুত্র নয়—সে আমার পরম শত্ৰু । তার মরণই আমার এখন মঙ্গল ।” রায় মহাশয় ।–“ছি ছি! ও সব কথা মুখে আনতে নেই! কেন ? হয়েছে কি ? আমায় খোলসা করে বল । আমি যে তাকে প্রাণের অধিক ভালবাসি। তার লেখাপড়ার জন্তু আমি সৰ্ব্বস্ব ব্যয় করেছি। আমার ক্ষুদকুড়া আর যা কিছু আছে, সকলই যে তার ! সে কি আমার নিকট কখনও কোন ও জিনিস চেয়ে পায়ু-নি ব’লে ক্ষুব্ধ হয়েছে? আমার তো স্মরণ হয় না,—তার কোনও অভাব { কখনও আমি অপূর্ণ রেখেছি! যদি কিছু থাকে, যদি সে আভাষ | কিছু পেয়ে থাক, আমায় নিঃসঙ্কোচে বলতে পার।—আমি প্রাণ দিয়েও তার সে আকাঙ্ক পূর্ণ করবে। সে ঘড়ি-চেন চেয়েছিল ; আমি বিয়ের আগেই তার পছন-মত ঘড়ি-চেন কিনে পাঠিয়ে দিয়েছি। সে পোষাকের জন্য আবার করেছিল ; আমি নিতান্ত অনিচ্ছাসত্বেও সাহেব-বাড়ী থেকে দু’শ টকা খং করে তার পোষাক তৈরী করে দিয়েছি। ঘুর্ণাঙ্গৰে ভাং অভাবের কথা শুনলে, আমি কখনও তো তার অভাব-অণু বাrিন " ';