পাতা:চৈতালি-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মধ্যাহ্ন বেলা দ্বিপ্রহর । ক্ষুদ্র শীর্ণ নদীখানি শৈবালে জর্জর স্থির স্রোতোহীন । অধমগ্ন তরী-’পরে মাছরাঙা বসি, তীরে ছুটি গোরু চরে শস্যহীন মাঠে ৷ শাস্তনেত্ৰে মুখ তুলে মহিষ রয়েছে জলে ডুবি । নদীকূলে জনহীন নৌকা বাধা । শূহ ঘাটতলে রৌদ্রতপ্ত দাড়কাক স্নান করে জলে পাখী ঝটুপটি । শ্যাম শপতটে তীরে খঞ্জন কুলায়ে পুচ্ছ মৃতা করি ফিরে । চিত্রবর্ণ পতঙ্গম স্বচ্ছ পক্ষভরে আকাশে ভাসিয়া উড়ে, শৈবালের পরে ক্ষণে ক্ষণে লভিয়া বিশ্রাম । রাজত সি অদূরে গ্রামের ঘাটে তুলি কলাভাষ শুভ্ৰ পক্ষ ধৌত করে সিক্ত চঞ্চুপুটে । শুষ্কতৃণগন্ধ বহি ধেয়ে আসে ছুটে তপ্ত সমীরণ— চলে যায় বহু দূর । 3 *