পাতা:তীর্থরেণু.djvu/৯৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
তীর্থরেণু
 

অভ্যর্থনা

পদ্মে রচিয়া বন্দন-মালা দ্যায় না তোরণে দোলায়ে,
সম্বল তার আঁখি-পদ্মের দৃষ্টি;
সুরভি অধরে মৃদু হাসি লয়ে বাতায়নে থাকে দাঁড়ায়ে,
পুষ্পদশনা করে না পুষ্পবৃষ্টি !
মঙ্গল ঘট বুকে ক'রে থাকে, শ্রম জলে অভিষিক্ত,
মাটিতে নামায়ে রাখিতে দেখিনি কভু সে,
তরুণীর পতি অভ্যর্থনা বাহির হইতে রিক্ত,
অন্তরে মিঠা অমৃত ছিটায় তবু সে!

রাজা অমরু।


সন্ধ্যার পূর্ব্বে

 
ওগো!  দিনের নাবাল ভুয়ে,
আর  রজনীর এই পারে,
কিছু  ধরিয়া পাইনে ছুঁয়ে
আঁখি  ডুবে যায় একেবারে;
ছায়া  মোলায়েম, আলো মৃদু,
পড়ে  পথে ঘাটে নুয়ে নুয়ে;—
রবি  ছড়িয়ে গেছে যে সীধু,
বাদল  যে ফুল গিয়েছে থুয়ে।

৭৫