প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:পণ্ডিতমশাই-শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/৬৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


দশম পরিচ্ছেদ ৩৯ প্রসাদ-ভক্ষণে। এটা বোধ করি, অকৃত্রিম ভক্তিবশত:ই–ছাত্রের এ সময়ে &হুগুস্থিত থাকিয়া গৌর-নিতাইয়ের অমৰ্য্যাদা-কবিতে পছন্দ করিত না । মুনি সময়েত্ৰিকুম্মাৎ এক দিন বৃন্দাবন তাঃার পাঠশালায় সমুদয় চিত্ত নিযুক্ত ৮রিয়া দিল। পোড়োদের তালপাত ধুইয়া আনিবার সময়. ছয় । ঘণ্টা হইতে কমাইয়া পোনের মিনিট করিল এবং সাপ্লাদিন আদর্শনের পর শুধু আরতির সময়টায় গৌরাঙ্ক-প্রেমে আকৃষ্ট হইয়া, তাঙ্গর পঙ্গপালের স্থায় ঠাকুর-দালান ছাইয়া না ফেলে সে দিকেও থর দৃষ্টি রাখিল । দিন-দশেক পরে একদিন বৈকালে বৃন্দাবনের তত্ত্বাবধানে পোড়োর সারি দিয়া দাড়াইয়া, তারস্বরে গণিত-বিদ্যায় ব্যুৎপত্তি লাভ করিতেছিল, একজন ভদ্রলোক প্রবেশ করিলেন। বৃন্দাবন সসন্ত্রমে উঠিয়া বসিতে আসন দিয়া চাঙ্গিয় রছিল, চিনিতে পারিল না। আগন্তক তারই সময়ী। আসন গ্রহণ করিয়ী গসিয়া বলিলেন, কি ভায়া, চিনতে পারলে না ? বুলবন সলজে স্বীকার করিয়া বলিল, কৈ না। - তিনি হলিলেন, আমার কাজ আছে তা পরে লুনাব । মামার চিঠিতে তোমার অনেক সুখ্যাতি শুলে বিদেশ বাবার পূর্বে একবার দেখ ক্তে નાર્હ --অামি কেশব । o - বৃন্দাবন লাফাই উঠিয়া এই বাল্যস্থস্থংকে আলিঙ্গন করিল। তাহার. ভূতপূর্ব ইংরাজিশিক্ষক দুর্গাপসবাবু ভাঙ্গিমের ইনি। ধৈর্বোহ বৎসর পূর্বে এখানে পাঁচ-ছয় মাস ছিলেন, সেই সময় উভয়ের অতিশ: বন্ধুত্ব ## 1 দুর্গাৎসবার স্ত্রীর মৃত্যু হ’লে কেশব মুনা যায়, সেই ఫౌ আর দেখা হয় নাই । তথাপি কেণ্ঠই কল্প কেও বিস্মৃত হয় নাই এবং তাহার শিক্ষকের মুখে বুলবন প্রায়ই এই বাল্যবন্ধুটির সংবাদ পাইতেছিল । ●