পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/১৯৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া । ソb・A পারিল না। পরে বিৰি দিলাতুর পত্ৰখানি পাইব|মাত্র মুক্ত কণ্ঠে পড়িতে আরম্ভ করিলেন, আর সকলে তাহা শুনিভে লাগিল । বর্জিনিয়া পত্রে এই লিখিয়া জানাইয়াছে যে, “আমার দিদিম। আমার উপরি যে নিষ্ঠুরতা প্রকাশ করিয়াছেন, তাহ লিখিয়া কি জানাইব । তিনি ফান্সদেশের এক জনের সহিত আমার বিৰাহ দিতে চাহিয়াছিলেন, তাহাতে আমি সম্মত না ত ওয়াতে তিনি আমার প্রতি যাহার পর নাই অসস্তুষ্ট হইয়া ধনাধিকারিণী করিতে সম্মত হইলেন না । এবং এই দুরন্ত ঝড় ঝটিকার সময়ে আমাকে এই উপদ্বীপে পঠাইয়াদিলেন । দিদি মা আমাকে অনবরত কুপরামর্শ দিতে ক্রটি করতেন না, কিন্তু সে সময়ে আমি উহাকে সবিনয়ে কহিতাম, তুমি আর এমন বিষয়ে আমাকে অনুরোধ করিও না । অামি আজন্ম মাতা ভিন্ন আর কাহাকেও জানি না, আমি সেই মাকে জিজ্ঞাসিব মা, ও বাল্যাবধি যাহার সঙ্গে একাত্মভাব তাহাকে জানাইব না, এবং পিতার ন্যায় সৰ্ব্বদ। তত্ত্বাবধান করেন এমন পরম সুহৃদের অভিমত লইব না, এবং অকপট হৃদয়ে যাহার। আমাকে লালন পালন করিয়াছেন তাহার। জানিতে পারিবেন না, অথচ আমার বিবাহ হইবেক, ইহা কেমন কথা কহে ন । নিশ্চিত বলিতেছি এমন বিবাহে আমার কোনমতেই রুচি হয় না । এই সকল কথা শুনিয়। দিদি মা প্রায় যখন তখন বলিতেন তোর বুদ্ধি শুদ্ধি লোপ পাইয়াছে । যাহাহউক মা ! এখন আমার মতত এই চিন্ত, হইতেছে যে কৰে আমার প্রিয় পরিবার-বর্গকে অৰ