পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া । స নিমগ্ন হইলেন । এইরূপে কিছুদিন গেলে পর তিনি কিঞ্চিৎ ধৈর্ঘ্য অবলম্বন করিয়া মনে হ এই ভাবিতে লাগিলেন এখন ত আমাকে অসহায়িনী হইয়া উপদ্বীপেই থাকিতে হইল, উপায় কি করি ! এমন কোন সংস্থান নাই, যে তাহার অবলম্বনে, জীবন যাপন করিতে সমর্থ হই । এ স্থলে কাহারে সহিত আমার আলাপ পরিচয় নাই, কাহার নিকটেও সম্মান নাই, কিরূপে দিনপাত করিব । ” এইরূপ চিন্তায় মগ্ন থাকিয় বিবি দিলাতুর, কোন দিক দিয়া দিব। রাত্রি যাইতে লাগিল, কিছুই জানিতে পারিলেন না । অভিভাবকের মধ্যে র্তাহার নিকটে এৰু কফি, দাসী ছিল, কখন কিছু বলিতে কহিতে হইলে, সেই দাসী ভিন্ন কোন গতি ছিল না । কাহার নিকট যাচঞ করা তাহার কখনই অভ্যাস ছিল না; সুতরাং তাহাতে নির্ভর করাও কঠিন বোধ হইল । অtশ ভরসা সকলই এক জনের উপরি ছিল, বিধাতা তাহাকে তাহা হইতেও বঞ্চিত করিয়াছিলেন । কিন্তু এতাদৃশ দুঃখের সময়ে তিনিই তাহার মনে সাহসের সঞ্চার করিয়া দিলেন । তাহাতেই তিনি সেই দাসীর সহায়তায় এখানকার এক স্থানে ক্লষিকৰ্ম্ম করিয়া দিনপাত করিতে মনস্থ করিলেন । উপদ্বীপ প্রভৃতি পতিত স্থানের নিয়ম এই যে, তাহাতে যদি কোন প্রজা বসিতে চায়, তবে সে যে স্থান মনোনীত করে, সেখানেই বাস করিতে পারে । এইহেতু তৎকাল পর্যন্ত বিবি দিলাতুরের এ প্রদেশের কোন অংশই নিজ বাসস্থান বলিয়। নির্দিষ্ট