পাতা:পাল ও বর্জিনিয়া.pdf/২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


পাল ও বর্জিনিয়া। ン ? ভার হইত। মীর গেটের এক স্বতন সখী প্রাপ্তি হইয়াছে এ কথা পরম্পরায় শুনিবামাত্র, অামি অতিমাত্র সত্ত্বর হইয়। এখানে তাহার সহিত সাক্ষাৎ করিতে আইলাম । আমার মনের কথা এই ছিল যদি কোন বিষয়ে তাহাদের কিছু সাহায্য করতে হয়, তাহ। হইলে অমাদ্ধারা কোন না কোন উপকার দর্শিলেও দশিতে পরিবেক । ইণ্ড ভাবিয়া আমি এখানে উপস্থিত হইলাম এবং দেখিলাম বিবি দিলাতুরের রূপে কুটার আলোকময় হইয়াছে। শোকে তাহার লাবণ্যময়ী মুখচ্ছবিতে মলিনতা জন্মিায়াছিল, তথাপি তাহার কান্তির কিছুমাত্র হ্রাস করিতে পারে নাই, বরং অার একখানি বিলক্ষণ শোভাই উৎপাদন করিয়াছিল । কিছু দিন পরে, আমি বিবি দিলাতুরকে দেখিলাম, তিনি গৰ্বতরে নিতান্ত মন্থর হইয়া পড়িয়াছেন, প্রসব হইতে অীর বড় বিলম্ব নাই । ইহাতে আমি তাহাদিগের উভয়কে কহিতে লাগিলাম “তোমর। উভয়ে পরস্পর বন্ধুতা করিয়া যে এ স্থলে অবস্থিতি করিতেঙ্গ, ইহাতে আমার যৎপরোনাস্তি পরিতোষ জন্মিয়াছে, কিন্তু এক গৃহে দুই পরিবারের অবস্থিতি হইলে সৰ্ব্বতোভাবে ত সামঞ্জস্য হইতে পারে ন! । অতএব এক কৰ্ম্ম আছে, বলি শুন, এই গুহীর মধ্যবর্তী যে মুনাধিক বিংশতি বিঘ ভূমি পতিত রহিয়াছে, ইহা তোমরা উভয়ে সমানাংশে বিভাগ করিয়া লগু । উত্ত্বর কালে তোমাদের সন্তানের যোগ্য হইয়| উঠিলে তাহীদের পক্ষে আর কোন অসুবিধ ঘটিবার সম্ভাবন