পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৩৯০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


૭૧ના ভারতবর্ষ। কর্ণেল জলকটু, মিশরের সহিত ভারতের সম্বন্ধ-তত্ত্ব-নির্ণয়-প্রসঙ্গে, বলিয়াছেন,-“আমরা নিঃসঙ্কোচে বলিতে পারি, আট. সহস্ৰ বৎসর পূর্বে ভারতবর্ষ হইতে ঔপনিবেশিকগণ fমশরে গমন করিয়া সভ্যতা ও শিল্প-কল। বিস্তার করিয়াছিলেন। প্রথিত-যশ প্রত্নতত্ত্ববিং ‘ক্রগস বে’ প্রাচীন মিশরের উৎপত্তি সম্বন্ধে এই কথাই বলিয়া গিয়াছেন। বর্তমান কালে, মিশর-সম্বন্ধে তাহার সিদ্ধান্তই অধিকতর বিশ্বাসযোগ্য। তিনি স্পৰ্দ্ধা করিয়া খলিয়াছেন,–‘ইতিহাসের স্মরণাতীত কালে এক দল ভারতবাসী সুয়েজ যোজক অতিক্রম করিয়া নীল-নদের তীরে উপনিবেশ স্থাপন করিয়াছিলেন। মিশর দেশের পুরাতত্ব আলোচনা করিলে, বেশ বুঝিতে পারা যায়,—মিশরবাসীরা ‘পস্থ' নামক যে পবিত্র দেশ হইতে নীল-নদের উপত্যকায় আসিয়া বাস করিয়াছিল, সেই পবিত্র পন্থ দেশ– ভারতবর্ষ ভিন্ন অঙ্ক কোনও দেশ হইতে পারে না। তাহাদের সেই পন্থ' দেশ, ভারতমহাসাগরের তীরে অবস্থিত ছিল, এবং সেই দেশ হইতে র্তাহাদের দেবতারাও মিশরে আগমন করিয়াছিলেন,—এখন নানারূপেই তাহ প্রমাণিত হইতেছে।......'দার-এলবাবরি সহরে, রাণী হাস্লিটপের মন্দিরের প্রাচীর-গাত্রে যে সাঙ্কেতিক চিত্রাক্ষর দৃষ্ট হয়,— তাহাতেও পন্থ’কে ভারতবর্ষেরই প্রদেশ-বিশেষ ভিন্ন অন্য কিছু বলা যায় না। প্রাচীন মিশরীয়গণ বহুকাল পর্য্যন্ত আপনাদের আদি-বাসস্থান ভারতবর্ষের সহিত বাণিজ্য করিয়াছিল। তাহারা পন্থের যুবরাজগণের যে পরিচয় দিয়া গিয়াছে, এবং সেই দেশের পত্রপুষ্পের-বিশেষতঃ বৃক্ষদির—যে নাম-সংজ্ঞা নির্দেশ করিয়াছে, তাহাতে ভারতীয় সভ্যতা যে মিশরের প্রাচীন সভ্যতার মূলীভূত, তদ্বিষয়ে কোনই সন্দেহ থাকিতে পারে না।” • প্রত্নতত্বানুসন্ধিৎসু পোকক, এ বিষয়ের ষড় বিধ কারণ নির্দেশ করিয়াছেন ;–“ভারতবর্ষের উত্তর-পশ্চিম প্রদেশ এবং হিমালয়ের সন্নিহিত দেশ-সমূহ হইতে আফ্রিকায় যে উপনিবেশ স্থাপিত হইয়াছিল, তাহার কয়েকটা প্রধান প্রমাণের বিষয় আমি সংক্ষেপে উল্লেখ করিতেছি । প্রথয,~~প্রাচীন মিশরের বহু প্রদেশের এবং বহু নদ-নদীর নাম-করণে— ভারতবর্ষের নদ-নদী ও প্রদেশের নাম-করণের সহিত সাদৃত আছে। দ্বিতীয়-ভারতবর্ষের অথবা ভারতের উত্তর-পশ্চিম-সীমান্তের নগর ও প্রদেশের নামের সহিত, মিশরের নগরারি নামের সাদৃপ্ত দেখিতে পাওয়া যায়। তৃতীয়,—মিশরের শাসনকর্তৃগণের “রামেস বা ‘রামিসাস আখ্যা হইতেও (স্বৰ্য্যবংশাবতংস ঐরামচন্দ্রের বংশ-সমুদ্ভুত রাজন্ত-বর্গ বলিয়াও) সম্বন্ধ-তৰ বুঝিতে পারি। চতুর্থ-সমাধি-ক্রিয়ার উপকরণাদিতে সাদৃপ্ত বিদ্ধমান । পঞ্চম,—স্থাপত্যের শিল্প-নৈপুণ্যে, বৃহদায়তনে এবং জাক-জমকে সেীসাপ্ত। ষষ্ঠসংস্কৃতের সাহায্যে মিশর-দেশীয় কতিপয় ভাষার অনুবাদের সুবিধা ।” 1 অধিক কিযে কর্ণেল টড মিশরের এবং তারতের রাজন্তবর্গের বংশ-পৰ্যায় আলোচনার Tन्क्लनचन्कन्ज क्रिब चानवाब बब्बामकानकविज्ञानरशक्झिन्झन -“He (ant" Bey) insists that they (the Egyptians) migrated from India long before histo "“” and crossed that bridge of nations, the Isthmus of of sue, to ånd a new fatherland * the banks •f the Nile” + Mr. Pococke.-India in Greece,