পাতা:পৃথিবীর ইতিহাস - প্রথম খণ্ড (দুর্গাদাস লাহিড়ী).pdf/৪২৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


অন্যান্য নৃপতিগণ । 8లి বহু যজ্ঞের ফলে, বহু ব্রতাঙ্গুষ্ঠান-স্বারা, তিনি এই পুত্র-রত্ন লাভ করেন । তেজপুর পরিত্যাগ : করিয়া, অশ্ব আরণ্যক ঋষির আশ্রমে প্রবেশ করে। অতঃপর, নর্শদা-সলিল অতিক্রম । করিয়া, অশ্বসহ শত্রুয়াদি বীরগণ দেব-নিৰ্ম্মিত দেবপুরে উপস্থিত হন। তথায় মানবগণের গৃহসকল স্ফটিক-মণিময় ভিত্তি-বিন্যাস-হেতু যেন নাগগণ-সেবিত বিমল বিন্ধ্যা- ৷ চলকেও উপহাস করিতেছিল। ৰূপবর বীরমণি সে রাজ্যের অধিপতি ছিলেন। র্তাহার পুত্র রুক্সাঙ্গদ সেই যজ্ঞাশ্ব বন্ধন করেন। এ নগরেও ঘোরতর যুদ্ধ হয়। রাজা বীরমণি পুলের নিকট পরাজিত হইলে, রাজ-ভ্রাত বীরসিংহ প্রবল বিক্রমে সমরাঙ্গণে অবতীর্ণ হন। স্বয়ং মহেশ্বর বীরসিংহের সহায় হইয়াছিলেন। সুতরাং যুদ্ধে শক্রয়াদির পরাজয় হয়। পরিশেষে শ্রীরামচন্দ্র উপস্থিত হইলে, শিব-রামের অভিন্নত্ব উপলব্ধি করিয়া, বীরমণি দিব্যজ্ঞান লাভ করেন। যজ্ঞাশ্ব প্রত্যপিত হয়। রাজা বীরমণি, ঐরামচন্দ্রের শরণাগত হইয়া, স্বীয় সৈন্ত্য-সামস্ত-সমভিব্যাহারে শক্রমের অঙ্কগমন করেন । ইহার পর, ভারতপ্রান্ত-বৰ্ত্তী হেমকূট পৰ্ব্বতে অশ্ব উপনীত হয়। সেই পৰ্ব্বত অতিক্রম করিয়া, যজ্ঞাশ্ব একে একে অঙ্গ, বঙ্গ, কলিঙ্গ দেশের রাজগণ-কর্তৃক সন্মান-প্রাপ্ত হইয়াছিল। অবশেষে, সুরথরাজার রাজধানী কুণ্ডল-নগরে অশ্ব উপনীত হইলে, রাজা সেই অশ্ব বন্ধন করেন । রাজার মহাবল-পরাক্রান্ত দশট পুত্র ছিল। তাহাদের নাম-চম্পক, মোহক, রিপুঞ্জক, দুৰ্ব্বার, প্রতাপি, বলমোদক, হৰ্য্যক্ষ, সহদেব, ভূরিদেব ও মুতাপন। সেই বীর রাজকুমারগণও পিতার আদেশে যুদ্ধার্থ সজ্জিত হইলেন। সুরথ-রাজের সহিত ঘোর যুদ্ধ চলিল । সুরথ ঐরামচন্দ্রের ভক্ত ছিলেন। কিন্তু মনে মনে তাহার দর্শনাকাঙ্ক করিয়াই যুদ্ধ চালাইয়াছিলেন। যুদ্ধে ਮਸ਼ প্রভৃতি পরাজিত হইলে, ঐরামচক্সের আগমনে, সুরথ-রাজ ভক্তিতরে যজ্ঞাশ্ব প্রদান করেন । ইহার পর, চম্পককে রাজ-সিংহাসনে প্রতিষ্ঠিত করিয়া, রাজা সুরথ শক্ৰয়ের সহিত দেশ-বিজয়ে গমন করিলেন। তখন, তাহারা যে যে দেশে গমন করেন, একে একে সকল দেশের নৃপতিই তাহাজের বগুত। স্বীকার করিয়াছিলেন। কিন্তু শেষে বন্ধীকির তপোবনে অশ্ব উপনীত হইলে, লব ও কুশ সে অশ্ব বন্ধন করেন। ঐরাম-পুত্র সেই দুই বালকের সহিত যুদ্ধে বীরগণ কেহই সমর্থ হন না। স্বয়ং ঐরামচজও সেই বালকযুগলের নিকট পরাজয় স্বীকার করিতে বাধ্য হন। সেই যুদ্ধে ঐরামচন্দ্রের পক্ষীয় ধোদ্ধবৃন্দ নিহত হইলে, মহৰ্ষি বাল্মীকি মৃত-সঞ্জীবনী-মন্ত্রে তাহাদিগকে সঞ্জীবিত করেন ; যজ্ঞশ্ব প্রত্যপিত হয়। এঁরামচন্দ্রের অশ্বমেধ-বঙ্গের অঙ্গুষ্ঠানে, এই সকল নৃপতির পরিচয় পাওয়া যায়। এতভিন্ন, পদ্মপুরাণে, মহীরথ, ঐশ্বর, ভদ্রশ্ৰবা; চিত্ৰসেন প্রভৃতি আরও কত রাজার কতরূপ কীৰ্ত্তি-কাহিনীর উল্লেখ দেখিতে পাই। মহীরথ রাজার প্রসঙ্গে পত্রপুরাণে লিখিত আছে,—‘রাজা সৰ্ব্বদা কাম-ক্রীড়ায় আসক্ত ছিলেন । ধৰ্ম্মার্থ-বিষয়ে কখনও अशद्र मन माझ्डे रहेड न। यबि-श्रख ब्राचण्डाब अमान कब्रिज, डिनि निबड हविग्नস্থখ-সম্ভোগে নিরত ছিলেন। তদীয় পুরোহিত কগুপ তাহাতে বড়ই ক্ষুণ্ণ হন। অনেক বুৰাইয়া শেষে তিনি রাজাকে বৈশাখ-মাসের অঙ্গুষ্ঠেয় দান-দানাদি কয়েকটা কার্কে অনুরক্ত । করেন। পুরোহিতের উপদেশে অতি কষ্টে বৈশাখ মাসে রাজা ধৰ্ম্ম-কৰ্ম্ম করিতেন ; জার,