পাতা:প্রবন্ধ পুস্তক-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১২৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১১৬ তারতবর্ষের স্বাধীনতা এবং পরাধীনতা । যে বৈষম্য, তাহ প্রাচীন ভারতে ব্ৰাহ্মণ শূদ্রের বৈষম্যের অপেক্ষা কি গুরুতর ? রাজা ভিন্নজাতীয় হইলে যে জাতিপীড়া জন্মে, তাহা দুই প্রকার ঘটে। এক রাজব্যবস্থাজনিত ; আইনে বিধি থাকে যে রাজার স্বজাতীয়গণের পক্ষে এই এই রূপ ঘটিবেক, দেশীয় লোকের পক্ষে অন্য প্রকার ঘটিবেক। দ্বিতীয়, স্বজাতিপক্ষপাতী রাজার ইচ্ছাজনিত ; রাজপ্রসাদ, রাজা স্বজাতিকে দিয়া থাকেন এবং তিনি স্বজাতিপক্ষপাতী বলিয়া রাজ্যের কার্য্যে স্বজাতিকেই নিযুক্ত করিয়া থাকেন। ইংরেজশাসিত ভারতে, এবং ব্রাহ্মণশাসিত ভারতে এই দুইটী দোষ কি প্রকার বর্তমান ছিল দেখা যাউক । ১ম । ইংরেজদিগের কৃত রাজব্যবস্থায়ুসারে, দেশী অপরাধীর জন্য এক বিচারালয়, বিলাতী অপরাধীর জন্য অন্য বিচারালয়। দেশী লোক ইংরেজ কর্তৃক দণ্ডিত হইতে পারে, কিন্তু ইংরেজ দেশী বিচারক কর্তৃক দণ্ডিত হইতে পারে না। ইহা ভিন্ন ব্যবস্থাগত বৈষম্য তার বড় নাই। কিন্তু ইহা অপেক্ষ কত গুরুতর বৈষম্য ব্রাহ্মণরাজ্যে দেখা যায় ! ইংরেজের জন্য পৃথক্ বিচারালয় হউক, কিন্তু আইন পৃথক্ নহে। যেমন একজন দেশীয় লোক ইংরেজ বধ করিলে বধাই, ইংরেজ, দেশী লোককে বধ করিলে, আইন অনুসারে সেইরূপ বধাই। কিন্তু ব্রাহ্মণ রাজ্যে শূদ্রহন্ত ব্রাহ্মণের এবং ব্রাহ্মণহস্ত শূদ্রের দণ্ডের কত বৈষম্য! কে বলিবে, এ বিষয়ে প্রাচীন ভারতবর্ষ হইতে আধুনিক ভারতবর্ষ নিকৃষ্ট । ইংরেজের রাজ্যে যেমন ইংরেজ দেশী লোককর্তৃক দণ্ডিত হইতে পারে না, প্রাচীন ভারতেও সেইরূপ ব্রাহ্মণ শূদ্ৰকর্তৃক দণ্ডিত হইতে পারিত না। রাবু দ্বারকানাথ মিত্র, প্রধানতম