পাতা:প্রবন্ধ পুস্তক-বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/১৫২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


প্রাচীন এবং নবীন । S8S) অবশ্য পালনীয় ; এবং পরোপকারবিধি সেই সকল নিয়মের ফল। অতএব এ স্থলে ধৰ্ম্মের ক্ষতি হইল না । কিন্তু যদি কেহ ঈদৃশ পরিমাণে মাত্র বিদার আলোচনা করে যে তদার প্রাচীন ধৰ্ম্মশাস্ত্রে বিশ্বাস বিনষ্ট হয়, অথচ যতদূর বিদ্যার আলোচনায় প্রাকৃতিক ধৰ্ম্মে বিশ্বাস জন্মে, তত দূর না যায়, তবে তাহার পক্ষে ধৰ্ম্মের কোন মূল থাকে না। লোকনিন্দাভয়ই তাহাদিগের একমাত্র ধৰ্ম্মবন্ধন হইয়া উঠে। সে বন্ধন অতি দুৰ্ব্বল। আধুনিক অল্পশিক্ষিত যুবক যুবতীগণ, কিয়দং এই অবস্থাপন্ন ; এ জন্য ধৰ্ম্মাংশে তাহার প্রাচীনদিগের সমকক্ষ নহেন। যাহারা স্ত্রীশিক্ষায় ব্যতিব্যস্ত, তাহাদিগের আমরা জিজ্ঞাসা করি, যে আপনার বালিকাদিগের হৃদয় হইতে প্রাচীন ধৰ্ম্মবন্ধন বিযুক্ত করিতেছেন, তাহার পরিবর্তে কি সংস্থাপন করিতেছেন ?*

  • “ নবীন ও প্রাচীন৷ ” এই প্রবন্ধ বঙ্গদর্শনে প্রকাশিত হইলে পর, স্ত্রীলোকের পক্ষ হইতে যে উত্তর আছে, তাছা নিম্নলিখিত কৃত্রিম পত্র তিন খানিতে লিখিত হইয়াছিল।

তিন রকম | নং ১ বঙ্গদর্শনে ‘নবীন এবং প্রাচীন’ কে লিখিল ? ধিনি লিখুন, তিনি মনে করিয়াছেন, অবলা স্ত্রীজাতি কিছু কথা কহিবে না, অতএব যাহা ইচ্ছ। তাছা লিখি । জানেন না যে সম্মার্জনী স্ত্রীলোকেরই আয়ুধ। ভাল, নবীন মহাশর, আপনার নবীন প্রাচীনায় গুণ দোষের তুলনা করিয়াছেন, নবীন ও প্রাচীনে কি তুলনা হয় না ? তুলনা করিলে দোষের ভাগ কোন দিকে ভারি হইবে ?