প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:প্রহাসিনী-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১০৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ধ্যানভঙ্গ পদ্মাসনার সাধনাতে দুয়ার থাকে বন্ধ, ধাক্কা লাগায় সুধাকান্ত, লাগায় অনিল চন্দ । ভিজিটরকে এগিয়ে আনে ; অটোগ্রাফের বহি দশ-বিশটা জমা করে, লাগাতে হয় সহি । আনে ফটোগ্রাফের দাবি, রেজেস্টারি চিঠি, বাজে কথা, কাজের তর্ক, নানান খিটিমিটি । পদ্মাসনের পদ্মে দেবী লাগান মোটর-চাকা, এমন দৌড় মারেন তখন মিথ্যে র্তারে ডাকা । ভাঙা ধ্যানের টুকরো যত খাতায় থাকে পড়ি ; অসমাপ্ত চিন্তাগুলোর শূন্তে ছড়াছড়ি ৷ সত্যযুগে ইন্দ্রদেবের ছিল রসজ্ঞান, মস্ত মস্ত ঋষিমুনির ভেঙে দিতেন ধ্যান— ভাঙন কিন্তু আর্টিসটিক ; কবিজনের চক্ষে লাগত ভালো, শোভন হত দেব তাদিগের পক্ষে । তপস্যাটার ফলের চেয়ে অধিক হত মিঠা নিস্ফলতার রসমগ্ন অমোঘ পদ্ধতিটা । ইন্দ্রদেবের অধুনাতন মেজাজ কেন কড়া— তখন ছিল ফুলের বঁাধন, এখন দড়িদড় ॥ Y • R