পাতা:বঙ্কিমচন্দ্রের উপন্যাস গ্রন্থাবলী (প্রথম ভাগ).djvu/২৬

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রাজসিংহ জেব । তাই অনুগ্রহ করিয়া আমাকে নেক করিতে চাহিয়াছিলে ? মবা। আমি অনেক দিন হইল, উহাকে তাল্লাক দিয়া পরিত্যাগ করিয়াছি । জেব ! কেন পরিত্যাগ করিয়াছ ? মবা । সে পাগল। অবশু তাহা আপনি বুঝিয়া থাকিবেন। জেব । পাগল বলিয়া ত আমার কখন বোধ হয় নাই । মব । সে আপনার কার্য্যসিদ্ধির জন্য হুজুরে হাজির হয় । কাজের সময় আমিও তাহাকে কখন পাগল দেখি নাই। কিন্তু অন্ত সময়ে সে পাগল । আপনি তাহাকে খামৃক কোন দিন অনাইয়। দেখিবেন । জেব। তুমি তাহাকে পাঠাইয়। দিতে পারিবে ? বলিও যে, আমার কিছু ভাল স্ববৃমার প্রয়োজন আছে । মবা । আমি কাল প্রভাতে এখান হইতে দূরদেশে কিছু দিনের জন্য যাইব । জেব । দুরদেশে যাইবে ? কৈ, সে কথা ত আমাকে কিছুই বল নাই ? মবা । আজ সে কথ। নিবেদন করিব ইচ্ছা-ছিল । জেব। কোথায় যাইবে ? মবা । রাজপুতানায় রূপনগর নামে গড় আছে। সেখানকার রাও সাহেবের কন্যাকে মহিষী করিবায় অভিপ্রায় শাহান শাহের মরজি মবারকে হইয়াছে । কাল তাহাকে আনিবার জন্য রূপনগরে ফৌজ যাইবে । আমাকে ফৗজের সঙ্গে যাইতে হইবে । জেব । সে বিষয়ে আমার কিছু বলিবার আছে। কিন্তু আগে আর একটা কথার উত্তর দাও । তুমি গণেশ জ্যোতিষীর কাছে ভাগ্য গণাইতে গিয়াছিলে ? মবা। গিয়াছিলাম । জেব। কেন গিয়াছিলে ? - মবা। সবাই যায়, এই জন্য গিয়াছিলাম, এ কথা বলিলেই সঙ্গত উত্তর হয় ; কিন্তু তা ছাড়া আরও কারণ ছিল । দরিয়া আমাকে জোর করিয়া টানিয়া লইয়া গিয়াছিল । জেব । হু । এই বলিয়া জেবাউন্নিসা কিছু কাল পুষ্পরাশি লইয়া ক্রীড়া করিল। তার পর বলিল, “তুমি গেলে ८कन ?” মবারক ঘটনাটা যথাযথ বিবৃত করিলেন । জেবউন্নিসা শুনিয়া জিজ্ঞাসা করিলেন, “জ্যোতিষী

  • >'

কি বলিয়াছিল ষে, তুমি শাহজাদী বিবাহ করাতাহা হইলে তোমার শ্ৰীবৃদ্ধি হইবে ?” মবা । হিন্দুর শাহজাদী বলে না। জ্যোতিষী রাজপুত্ৰী বলিয়াছিল । জেব । শাহজাদী কি রাজপুত্রী নয় ? মবা । নয় কেন ? ঙ্গেব। তাই কি তুমি সে দিন বিবাহের প্রস্তাব করিয়াছিলে ? মবা। আমি কেবল ধৰ্ম্ম ভাবিয়া সে কথা বলিয়াছিলাম। আপনার স্মরণ থাকিতে পারে, আমি গণনার পূর্ব হইতে এ কথা বলিতেছি । জেব। কৈ, আমার ত স্মরণ হয় না । তা ষাকৃ— সে সকল কথাতে আর কাজ নাই । তোমাকে এত কথা জিজ্ঞাসা করিলাম, তাতে তুমি গোসা করিও না । তোমার গোসায় আমার বড় দুঃখ হইবে । তুমি আমার প্রাণাধিক –তোমাকে যতক্ষণ দেখি, ততক্ষণ আমি সুখে থাকি । তুমি পালঙ্কের উপর আসিয়া বসে।--আমি তোমাকে আতর মাখাই । জেব-উল্লিস। তখন মবারককে পালঙ্কের উপর বসাইয়া স্বহস্তে আতির মাখাইতে লাগিল । তার পর বলিল, “এখন সেই রূপনগরের কথাটা বলিব ! জানি না, রূপনগরীর পিতা তাহাকে ছাড়িয়া দিবে কি না । ছাড়িয়া না দেয়, তবে কাড়িয়া লইয়া আসিবে ।" মধারক বলিল, "এরূপ আদেশ ত বাদশাহের নিকট আমরা পাই নাই ।” জেব। এ স্থলে আমাকেই না হয় বাদশাহ মনে করিলে ? যদি বাদশাহের এরূপ অভিপ্রায় না হইবে, তবে ফৌজ যাইতেছে কেন ? মবা । পথে বিস্ত্র-নিবারণ জন্ত । জেব । আলমগীর বাদশাহের ফোঁজ যে কাজে যাইবে, সে কাজে তাহারা নিষ্ফল হইবে ? তোমরা ষে প্রকারে পার, রূপনগরীকে লইয়া আসিবে । বাদশাহু যদি তাঁহাতে মাথোস হন, তবে আমি আাছি ; মবা। আমার পক্ষে সেই হুকুমই যথেষ্ট । তবে, আপনার এরূপ অভিপ্রায় কেন হুইতেছে, জানিতে পারিলে আমার বাহুতে আরও বল হয় । -- জেব-উন্নিসা বলিল, “সেই কথাটাই আমি বলিতে চাহিতেছিলাম । এই রূপনগরওয়ালীকে আমার ; কৌশলেই তলব হইয়াছে।” মবা। মতলব কি ? - জেব । মতলব এই যে, উদিপুরীর রূপের বড়াই আর সহ্য হয় না । শুনিলাম, রূপনগরওয়ালী আরও