পাতা:বত্রিশ সিংহাসন - নীলমণি বসাক.pdf/৮০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

৭৪

বত্রিশ সিংহাসন

ভােজরাজ পুত্তলীর এই সকল বাক্য শুনিয়া সে দিবসও মনােহুঃখে ইতস্ততঃ ভ্রমণ করিতে লাগিলেন, তাহাতে সিংহাসনােপবেশনের কাল অতীত হইল। পরদিবস সিংহাসন সমীপে উপস্থিত হইয়া পুত্তলিকা গণকে জিজ্ঞাসা করিলেন কেমন তােমর অদা কি বল, তােমাদের কথা শুনিয়া আমি বড়ই আলাদিত হইতেছি। তখন

মধ্যমাবতী নবম পুত্তলিকা

কহিল হে ভােজরাজ আমি রাজা বিক্রমাদিত্যের দাতৃত্ব গুণের কিঞ্চৎ প্রসঙ্গ করিতেছি শ্রবণ কর। এক দিন রাজা দেশীয় তাবৎ লােক এবং নানা দেশীয় রাজাকে নিমন্ত্রণ করিয়া মহাসমারােহে যজ্ঞারম্ভ করিয়াছিলেন। ভাট ও ভিক্ষকগণ সেই সংবাদ শুনিয়া দেশ দেশান্তর হইতে আসিয়াছিল। দূরদেশীয় নৃপতিগণ অনেক অনেক লােক সমভিব্যাহারে আগত হইয়া ছিলেন। সভা সম্পত্তির কথা কি কহিব, দেবতাগণও ঐ সভায় অধিষ্ঠিত হইয়া ছিলেন।

 রাজা যজ্ঞ করিতেছেন এমত সময়ে এক বৃদ্ধ ব্রাহ্মণ উপস্থিত হইলেন। রাজা মন্ত্রপাঠ করিতেছিলেন এজন্য ব্রাহ্মণকে দূর হইতেই দেখিয়া মনে মনে প্রণাম করিলেন। ব্রাহ্মণ আগম-বিদ্যাতে পারদর্শী ছিলেন, রাজার মানসিক প্রণাম জানিতে পারিয়া হস্ত প্রসারণ পূর্ব্বক আশীৰ্বাদ করিলেন। পরে মন্ত্রপাঠের