পাতা:বাংলাদেশ কোড ভলিউম ২৮.djvu/৩০৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ব্যাংক-কোম্পানী আইন, ১৯৯১ ఎఫి( (২) উপ-ধারা (১) এর বিধান মোতাবেক অগ্রাধিকার ভিত্তিক পাওনা পরিশোধ করার ক্ষেত্রে নিম্নবর্ণিতরূপে টাকা পরিশোধ করা হইবে, যথা : (ক) প্রথম দফায়, ব্যাংক-কোম্পানীর সঞ্চয়ী হিসাবে আমানতকারীদের প্রত্যেককে দুই হাজার পাঁচশত টাকা অথবা উক্ত হিসাবে তাহার জমা টাকার যে পরিমাণটি কম; (খ) দ্বিতীয় দফায়, ব্যাংক-কোম্পানীর পাওনাদারগণের প্রাপ্য প্রদানের জন্য থাকা টাকার শতকরা পঞ্চাশ ভাগ বা দুই হাজার পাঁচশত টাকা, এই দুইয়ের মধ্যে যে পরিমাণটি কমঃ তবে শর্ত থাকে যে, ব্যাংক-কোম্পানীতে যদি কোন একক ব্যক্তির সঞ্চয়ী হিসাব এবং অন্য কোন প্রকার হিসাব থাকে, তাহা হইলে তাহাকে দফা (ক) ও (খ) অনুযায়ী প্রদেয় মোট টাকার পরিমাণ দুই হাজার পাঁচশত টাকার উর্ধ্বে হইবে না, তবে কোন ব্যক্তির অন্য কোন ব্যক্তির সহিত যৌথ হিসাবের ক্ষেত্রে এই বিধান প্রযোজ্য হইবে না। co (৩) যদি উপ-ধর (১) এ উল্লেখিত তিন মাস সময়ের মধ্যে উপ-ধারা (২) এর দফা (ক) বা (খ) এর অধীন দেনা সম্পূর্ণ নগদ টাকায় প্রদান করা না যায় তাহা হইলে, সরকারী অবসায়ক সেই সময়ের মধ্যে দফা (ক), বা ক্ষেত্রমত, দফা (খ), এর অধীন প্রত্যেক আমানতকারীর পাওলু টাকা প্রাপ্ত সম্পদের সহিত অনুপাত বজায় রাখিয়া যতদূর সম্ভব প্রদান করিবেন, এবং সরকারী অবসায়ক নগদ টাকার আকারে যখন কোম্পানীর সম্পদ সংগ্রহ করিতে পারিবেন তখনই প্রত্যেক হকারীকে তাহার পাওনার বাকী টাকা প্রদান করিবেন। (৪) উপ-ধারা (১), (২) ও (৩) অনুসারে আমানতকারীগণের পাওনা পরিশোধ করার পর, সরকারী অবসায়ক সাধারণ পাওনাদারদের পাওনা ব্যাংককোম্পানীর সম্পদের সহিত অনুপাত বজায় রাখিয়া পরিশোধ করিবেন, এবং অতঃপর সরকারী অবসায়ক যখনই নগদ টাকার আকারে ব্যাংক-কোম্পানীর সম্পদ সংগ্ৰহ করিতে পরিবেন তখনই উপ-ধারা (২) এর দফা (ক) ও (খ) তে উল্লিখিত পাওনাদারগণের বাকী পাওনা সংগৃহীত সম্পদের সহিত অনুপাত বজয় ধিয়া প্ৰদান করবেন। (৫) সুরকারী অবসায়ক যাহাতে কোম্পানীর সর্বাধিক সম্পদ নগদ টাকার নিশ্চয়তাপ্রাপ্ত পাওনাদারদিগকে প্রদত্ত অনুমোদিত সম্পত্তি-নিদর্শন-পত্ৰ নিম্নলিখিতভাবে যুক্ত করিতে পারিবেন, যথা : (ক) উক্ত পাওনাদারের পাওনার পরিমাণ সম্পর্কে পাওনাদারের নিজের মূল্যায়ন, বা ক্ষেত্রমত, সরকারী অবসায়কের মূল্যায়ন, উক্ত নিদর্শনপত্রের মূল্য অপেক্ষা বেশী হইলে, সেই মূল্য পরিশোধ করিয়া; এবং