প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বাংলাদেশ কোড ভলিউম ২৮.djvu/৪৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


CŞ N cSR 8Wり মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন, ১৯৯০ (২) মহা-পরিচালক বা তাহার নিকট হইতে ক্ষমতাপ্রাপ্ত কোন কর্মকর্তা বা কোন পুলিশ কর্মকর্তা ব্যতীত অন্য কোন কর্মকর্তা ধারা ৩৬ এবং ৪১ এর অধীন কোন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করিলে বা কোন বস্তু আটক করিলে তিনি অনতিবিলম্বে গ্রেফতারকৃত ব্যক্তিকে বা আটককৃত বস্তুটিকে নিকটস্থ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অথবা ধারা ৩৯ এর অধীন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসাবে ক্ষমতাপ্রাপ্ত নিকটস্থ কোন কর্মকর্তার নিকট প্রেরণ করিবেন। (৩) উপ-ধারা (১) ও (২) এর অধীন কোন ব্যক্তি বা বস্তুকে যে কর্মকর্তার নিকট প্রেরণ করা হইবে তিনি, যতশীঘ্র সম্ভব, উক্ত ব্যক্তি বা বস্তু সম্পর্কে আইনানুগ যথাযোগ্য ব্যবস্থা গ্রহণ করিবেন। (৪) এই ধারায় যাহা কিছুই থাকুক না কেন, এই আইনের অধীন ও> আটককৃত কোন বস্তুর যদি, কোন কারণে, তাৎক্ষণিক বিলিবন্দেজ অপরিহার্য হয় অথবা উহা বহন বা স্থানান্তরের অযোগ্য হয় তাহা হইলে উক্ত বস্তু, উপযুক্ত নমুনা সংরক্ষণ সাপেক্ষে, বিধি দ্বারা নির্ধারিত পদ্ধতিতে, ব্যবহার, হস্তান্তর, ধ্বংস বা অন্য কোন প্রকারে উহার বিলিবন্দেজ করা যাইবে ।] &o ৪৬। (১) যদি মহা-পরিচালক বা তদধীন কোন কর্মকর্তার এইরূপ বিশ্বাস করিবার যথেষ্ট কারণ থাকে যে, কোন ব্যক্তি এই আইনের অধীন কোন অপরাধের সহিত জড়িত থাকিয়া অবৈধ অর্থ ও সম্পদ সংগ্রহে লিপ্ত আছেন এবং ব্যাংক হিসাব বা আয়কর বা সম্পদকর সম্পৰ্কীয় রেকর্ডপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা বা রেকর্ডপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার এবং, প্রয়োজন মনে করিলে, সংশ্লিষ্ট ব্যাংক হিসাব নিক্রিয়করণের (Freezing এর) অনুমতি প্রদানের জন্য সেসন তবে শর্ত থাকে যে মহাপরিচালকের অধঃস্তন কোন কর্মকর্তা উক্তরূপ করিবেন। So' (২) উপ-ধারা (১) এর অধীন পেশকৃত আবেদন পর্যালোচনা করিয়া, এবং আবেদনকারীকে শুনানীর সুযোগ দিয়া, সেসন জজ আবেদনটি নিষ্পত্তি করবেন এবং যদি তিনি প্রার্থীত অনুমতি যুক্তিসংগত বলিয়া মনে করেন, তাহা হইলে অনুমতি প্রদান করবেন এবং উহার একটি অনুলিপি সংশ্লিষ্ট ব্যাংক ও কর NON് so ് o Goo ব্যাংক-হিসাব ইত্যাদি

  • উপ-ধারা (৪) মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ (সংশোধন) আইন, ২০০০ (২০০০ সনের ৩৯ নং আইন) এর ২১ ধারাবলে

সংযোজিত ।

  • “এবং, প্রয়োজন মনে করিলে, সংশি0ষ্ট ব্যাংক হিসাব নিক্রিয়করণের (Freezing এর)” শব্দগুলি, কমাগুলি ও বন্ধনীগুলি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ (সংশোধন) আইন, ২০০০ (২০০০ সনের ৩৯ নং আইন) এর ২২ ধারাবলে

সন্নিবেশিত।