পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/১৫৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাংলা ব্যাকরণে তিৰ্য্যকুরূপ ソs ● তাহ সজীব ভাবে নাই, কিন্তু একারের ব্যবহার এখনও গতিবিশিষ্ট। ৷ “পাগলে কিনা বলে, ছাগলে কিনা খায়” এই বাক্যে “পাগলে* ও “ছাগলে” শব্দে ষে একার দেখিতেছি তাহা উক্তপ্রকার তিৰ্য্যকৃরূপের একার। বাংলা ভাষায় এই শ্রেণীর ভিৰ্য্যকৃরূপ কোন কোন স্থলে ব্যবহৃত হয় আমরা তাহার আলোচনা করিব । সামান্য বিশেষ্য । বাংলায় নাম সংজ্ঞা ( Proper names ) ছাড়া অন্তান্ত বিশেষ্যপদে যখন কোনো চিহ্ন থাকে না, তখন তাহাদিগকে সামান্য বিশেষ্য বলিয়া গণ্য করিতে হইবে । যেমন, বানর, টেবিল, কলম, ছুরি, ইত্যাদি । উল্লিখিত বিশেষ্য পদগুলির দ্বার। সাধারণভাবে সমস্ত বানর টেবিল চৌকি ছুরি বুঝাইতেছে, কোনো বিশেষ এক বা একাধিক বানর টেবিল চৌকি ছুরি বুঝাইতেছে না বলিয়াই ইহাদিগকে সামান্য বিশেষ্য পদ নাম দেওয়া হইয়াছে । বলা আবশ্বক ইংরেজি common names ও বাংলা সামান্য বিশেষ্যে প্রভেদ আছে । বাংলায় আমরা যেখানে বলি “এইখানে ছাগল আছে” cat*itca #*Cafarw acw, “There is a goat here” fswl “There are goats here” I traits of itsfäfstra বল হইতেছে ছাগলজাতীয় জীব আছে । তাহা কোনো একটি বিশেষ ছাগল বা বহু ছাগল তাহা নির্দেশ করিবার প্রয়োজন ঘটে নাই বলিয়া নির্দেশ করা হয় নাই কিন্তু ইংরাজিতে এরূপ