পাতা:বাংলা শব্দতত্ত্ব - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর -দ্বিতীয় সংস্করণ.pdf/১৮২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


Yūb . শব্দতত্ত্ব গ্রাস, অথবা দুই ঝাক পার্থী, এক গোচ্ছ চাবি, চার আঁটি ধান, দুই গ্রাস ভাত । “পত্ৰ” শব্দযোগে বাংলায় কতকগুলি শব্দ বহুত্ব অর্থ গ্রহণ করে । কিন্তু সেই বিশেষ কয়েকটি শব্দ ছাড়া অন্য শব্দের সহিত উহার ব্যবহার চলে না । গহনাপত্র, তৈজসপত্র, আসবাবপত্র, জিনিষপত্র, বিছানাপত্র, ঔষধপত্র, খরচপত্র, দেনাপত্র, চিঠিপত্র, খাতাপত্র, চোতাপত্র, হিসাবপত্র, নিকাশপত্র, দলিলপত্র, পুথিপত্র, বিষয়পত্র । is . পরিমাণসম্বন্ধীয় বহুত্ব বোঝাইবার জন্য বাংলায় শকাদ্বৈত ঘটিয়া থাকে ; যেমন, বস্তাবস্তা, ঝুড়িকুড়ি, মুঠামুঠ, বাক্সবাক্স, কলসিকলসি, বাটিবাটি । এগুলি কেবলমাত্র আধারবাচক শব্দ সম্বন্ধেই খাটে ; মাপ বা ওজন সম্বন্ধে খাটে না—গজ-গজ বা সের-সের বলা চলে না । সময় সম্বন্ধেও বহুত্ব অর্থে শব্দদ্বৈত ঘটে—বার বার, দিন দিন, মাস মাস, ঘড়ি ঘড়ি । বহুত্ব বুঝাইবার জন্য সমার্থক দুই শব্দের যুগ্মতা ব্যবহৃত হয়, যেমন –লোকজন, কাজকৰ্ম্ম, ছেলেপুলে, পার্থীপাখালী, জন্তুজানোয়ার, কাঙালগরীব, রাজারাজড়া বাজনাবাদ্য । এই সকল যুগ শব্দের দুই অংশের এক অর্থ নহে কিন্তু কাছাকাছি অর্থ এমন দৃষ্টান্তও আছে –দোকানহাট, শাকসবজি, বনজঙ্গল, মুটেমজুর, হাড়িকুড়ি। এরূপস্থলে বহুত্বের সঙ্গে কতকটা বৈচিত্র্য বুঝায়। যুগ্ম শব্দের একাংশের কোনো অর্থ নাই এমনো আছে। যেমন, কাপড়চোপড়,