পাতা:বাইবেল পুরাতন নিয়ম ও নতুন নিয়ম.djvu/২৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


*、*、* ২১ গিয়া দ্রীক্ষাক্ষেত্রে লুকাইয়া থাক : নিরীক্ষণ কর, আর দেখ, যদি শীলোর কন্যাগণ দলের মধ্যে নুত্য করিতে করিতে বাহির হইয়। আইসে, তবে তোমরা দ্রাক্ষাক্ষেত্র হইতে বাহির হইয় প্রত্যেকে শীলের কন্তদের মধ্য হইতে আপন আপন স্ত্রী ধরিয়া লইয়া ২২ বিদ্যমীন দেশে ও স্থান করিও । আর তাহদের পিতা কিম্ব ভ্রাতৃগণ যদি বিবাদ করিবার জন্য আমাদের নিকটে আইসে, তবে আমরা তাহাদিগকে বলিব, তোমরা আমাদের অনুরোধে তাহাদিগকে দান কর : কেননা যুদ্ধের সময়ে আমরা তাহদের প্রত্যেক জনের জন্ত স্ত্রী পাই নাই ; আর তোমরাও তাহাদিগকে দেও বিচারকর্তৃগণের বিবরণ – রূতের বিবরণ। [ ২১ ; ২১ – ১ ; ১৭ ৷ ২৩ নাই, দিলে এখন অপরাধী হইতে। তখন বিদ্যামীনসন্তানগণ তদ্রুপ করিয়৷ তাপনাদের সংখ্যানুসারে নুত্যকারিণী কন্যাদের মধ্য হইতে স্ত্রী ধরিয়া গ্রহণ করিল ; পরে আপন আপন অধিকারে ফিরিয়া গেল, এবং পুনৰ্ব্বার নগরগুলি নিৰ্ম্মাণ করিয়া তাহীদের ২৪ মধ্যে বাস করিল। আর সেই সময়ে ইস্রায়েল-সন্তানগণ তথা হইতে প্রত্যেকে আপন আপন বংশের ও গোষ্ঠীর কাছে প্রস্থান করিল ; তাহার। তথা হইতে বাহির ২৫ হইয় আপন আপন অধিকারে গেল। তৎকালে ইস্রায়েলের মধ্যে রাজ ছিল না ; যাহার দৃষ্টিতে যাহা ভাল বোধ সে তাহাই করিত। 零云二 くく○。 রাতের {Flos 히 1 颈 নয়মী ও রূৎ বৈৎলেহমে যান। Ş আর বিচারকর্তৃগণের কর্তৃত্বকালে দেশে এক বীর দুভিক্ষ হয় । আর বৈৎলেহম-যি দার একটী পুরুষ, তাহার স্ত্রী ও দুই পুত্র মোয়াব দেশে প্রবাস ২ করিতে যায়। সেই পুরুষটীর নাম ইলীমেলক, তাহার স্ত্রীর নাম নয়মী, এবং তাহার দুই পুত্রের নাম মহলেন ও কিলিয়েন , ইহার বৈৎলেহম যিহ্রদ। নিবাসী চফ্রাথীয় । ইহার মোয়াব দেশে গিয়া সেখানে থাকিয়৷ ৩ গেল । পরে নয়মীর স্বামী চলীমেলক মরিল, তাহতে ৪ সে ও তাহর দুই পুত্র অবশিষ্ট থাকিল। পরে সেই দুই জনে দুই মোয়াবীয় কস্তাকে বিবাহ করল । এক জনর নাম অপা, আর এক জনের নাম রূৎ। আর তাহার অনুমান দশ বৎসর কাল সেই স্থানে বাস ৫ করিল। পরে মহলোন ও কিলিয়োন এই দুই জনও মরিয়া গেল, তাহতে নয়মী পতিহীন ও উভয় পুত্রবিহীন হইয়। অবশিষ্ট রহিল । ৬ তখন সে দুইটা পুত্রবধূকে সঙ্গে লইয়। মোয়াব দেশ হইতে ফিরিয়। যাইবার জন্ত উঠিল । কারণ সে মোয়াব দেশে শুনিতে পাইয়াছিল যে, সদাপ্রভু আপন প্রজাদের তত্ত্বাবধান করিয় তাহাদিগকে খাদ্য দ্রব্য ৭ দিয়াছেন। সে ও তাহার দুই পুত্রবধূ আপনাদের বাসস্থান হইতে বাহির হইল, এবং যিহুদ। দেশে ফিরিয়া ৮ যাইবার জন্ত পথে চলিতে লাগিল । তখন নয়মী দুই পুত্রবধূকে কইল, তোমরা আপন আপন মাতার বাটত ফিরিয়া যাও ; মুতদের প্রতি ও আমার প্রতি তোমরা যেরূপ দয়া করিয়াছ, সদাপ্রভু তোমাদের প্রতি ৯ তদ্রুপ দয়। করুন। তোমরা উভয়ে যেন স্বামীর বাটীতে বিশ্রাম পাও, সদাপ্রভু তোমাদিগকে এই বর দিউন। পরে সে তাহাদিগকে চুম্বন করিল । তাঁহাতে তাহার ১• উচ্চৈঃস্বরে রোদন করিল। আর তাহারা তাহাকে কহিল, না, আমরা তোমারই সহিত তোমার লোকদের ১১ নিকটে ফিরিয়া যাইব । নয়মী কহিল, হে আমার বৎসার, ফিরিয়া যাও ; তোমরা আমার সহিত কেন যাইবে ? তোমাদের স্বামী হইবার জন্য এখনও কি ১২ আমার গৰ্ত্তে সন্তান আছে ? হে আমার বৎসারী, ফির, চলিয়া যাও ; কেননা আমি বুদ্ধ, পুনরায় বিবাহ করিতে পারি না : আর আমার প্রত্যাশা আছে, ইহ। বলিয়। যদি আমি আদ্য রাত্রিতে বিবাহ করি, আর ১৩ যদি পুত্রও প্রসব করি, তবে তোমরা কি তাহদের বয়ঃপ্রাপ্তি পর্য্যন্ত অপেক্ষা করিবে ? তোমরা কি সে জন্ত বিবাহ করিতে নিবৃত্ত থাকিবে ? হে আমার বৎসার, তাহ নয়, তোমাদের জন্ত আমার বড়ই দুঃথ হইয়াছে ; কেননা সদাপ্রভুর হস্ত আমার বিরুদ্ধে প্রসারিত হইয়াছে । পরে তাহারা পুনৰ্ব্বার উচ্চৈঃস্বরে রোদন করিল, এবং অপা আপন শাশুড়ীকে চুম্বন করিল, কিন্তু রূৎ ১৫ তাহার প্রতি অনুরক্ত রহিল । তখন সে কহিল, ঐ দেখ, তোমার যা আপন লোকদের ও আপন দেবতার নিকটে ফিরিয়া গেল, তুমিও তোমার যার পিছে ১৬ পিছে ফিরিয়া যাও । কিন্তু রূৎ কহিল, তোমাকে ত্যাগ করিয়া যাইতে, তোমার পশ্চাদগমন হইতে ফিরিয়া যাইতে, আমাকে অনুরোধ করিও না ; তুমি যেখানে যাইবে, আমিও তথায় যাইব ; এবং তুমি যেখানে থাকিবে, আমিও তথায় থাকিব ; তোমার লোকই আমার লোক, তোমার ঈশ্বরই আমার ঈশ্বর : ১৭ তুমি যেখানে মরিবে, আমিও তথায় মরিব,সেই স্থানেই S8 কবরপ্রাপ্ত হইব ; কেবল মৃত্যু ব্যতীত আর কিছুই 228