পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪৩২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কেবল মাত্র সকল ছায়া, সুদন বলে মিছা মায়া, করে রেখেছ জগৎময় | বেহাগ—আক্ৰীড়া । ক্ষণেক দাড়াও বঁধু আগে আমি যাই। মরিতে হবে তবে আর কেন যাতনা পাই ॥ হইল প্রেমের ব্রত সাঙ্গ, তরঙ্গে ডুবিল অপাঙ্গ, একবার দাড়াও হে ত্রিভঙ্গ, ত্যজি অঙ্গ দেখ তাই। আজ আমাদের শুভযাত্ৰ, দেখলাম তোমার রথযাত্র, আমরা করি গঙ্গাযাত্রা বঁধু ফিরে দেখ তাই ॥ কেন রব কৃতাঞ্জলি, করে যাওহে অন্তর্জলী স্থদন বলে কেন জলি এখনি জ্বালা ঘুচাই ॥ கங். দেওগিরি –টিমেতে তালা । চেয়ে দেখ কে কাল, দেখি নাই ত এমন কাল । হেরিয়ে চিকুণ কাল, গেল যে মনের কাল ॥ দেখেছি ত এত কাল, দেখেছি ত কত কাল, দেখি নাই এমন কাল, কালোতে এত ভাল ॥ শশীমুখে হাস্ত করে আরও করে করে বাণী, শ্রীরাধিকার মন ভুলাত সে বুঝি গোকুলবাসী, কোন প্রাণে ধরিয়ে প্রাণ, বিদায় দিলে হেন ধন, কি বধে এলে তার প্রাণ,জ্ঞান হয় তাহারি কাল । সেই রমণী দুঃখিনী যে নারীর ঐ কাল ছেলে, কেমনে রাচিবে সেই, কাল হবে কিছু কালে,— স্থদন বলে হাসি কলসী তোর যায় গো ভাসি, দেখতে পারিস্ ঘরে বসি ঐ কাল চিরকাল ॥ ஆ_ழ் दिक्üि-म६Tभ:म । সে হাটের স্থতো ভবে হাটে পাওয়া ভার। যার কলে হয় কলের স্থত, যার কলে হয় সুতামৃত, সেখানে সেই নন্দসুত পরিবে এবার। বাঙ্গালীর গান। এবার স্থতার বাজার গরম ভণের বাজারে, সে হাটে নাই কমী বেশি চল রে সত্বরে, সে হাটের এমনি বাখানি, রবি-মৃতের নাই আমদানী, নাই সেথ অধিক রপ্তানী হবে রে ব্যাপার। সাধু মহাজন কেবল যাচ্চে সে হাটে, ত নইলে কে যেতে পারে মৃতের নিকটে, খেই হারলি ভবের তাতে, চলরে তুই বৈকুণ্ঠেতে শুদনে লয়ে যাও সাতে, দেখিতে বাজার ॥ २|"रांड -भ६fभञ { ওমা আমি কি ছিলাম কি হলাম কি । আর বা হুইব কি, কোন মুখে এ মুখ দেখাব, কালি চিনিবে না দেখি ॥ যেমন বা মুদেছি আঁখি, তেমনি আমায় বানালে কি, ঘুচালে শুম বঞ্চিালাকি, আর কিছু নাহি বাকি ৷ মথুরা-নাগরী যত, কার রূপ দেখি নাই এত, আগে তাদের দেখাই গে ত, তারা কি বলে দেখি । আগে দেখে হাস্ত সবে, তেমনি এখন দেখতে পাবে, স্থদন কয় রাজরাণী হবে, তোমার আর ভাবনা কি ৷ विॐांम-üिम! ८७ठञt । মথুরা-নগরী যত নাগর হেরে নয়নে । বলে ত্বরায়ু আয় লো সখি, কে যাবি শ্রাম দরশনে ॥ কোন ধনী বলে সখি, ধরে দে ঐ কাল পাখী, হৃদি-পিঞ্জরেতে রাখি, হেরিব রূপ মনে মনে। কোন ধনী বলে সখি কে আনিল উহায়, কেমনে বধিয়ে মন ছাড়ি দিল মায়, বুঝি হবে মাতৃহীন, কিবা মাতার বধে প্রাণ, অথবা করিতে ত্রাণ, ছাড়ি এলো বৃন্দাবনে ॥