পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৪৩৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


WO8& যার গুণেতে তুমি গুণী, হারায়েছি সেই গুণী, আবার কি গুণগুণ শুনালি । মধুসূদন বিনে ভৃঙ্গ কেন হতেছ বিহ্বল, মধুসূদন বিনে মধুর আশা ত বিফল, তবে কেন মধু কর, বৃথা মধু মধু কর, যাও না কেন মধুপুর, সেখানে মধু সকলি ॥ ও ভৃঙ্গ ত্রিভঙ্গ বিনে সকলি বিগুণ, যে ছিল ক্ষতি নিওঁ ণ বেড়েছে তার গুণ, আমরা সব হয়েছি নিৰ্গুণ, কেবল বুদ্ধি বিচ্ছেদ-আগুণ, স্থদন কয় জুড়াবে আগুন, যদি এসেন বনমালী। জয়জয়ন্তী—ঢ়িম-কাওয়ালী । ষট্রপদ রাইপদ ধরি কাদে, যার ছায়া না লাগে চাদে, সেই ধনী আজ পথে পথে র্কাদে । যার পদ সবার সম্পদ, পরশে হয় নিরাপদ, গিরিধর ধরে যে পদ, সেই পদ আজ পদাপর্ণ বিপদে ॥ যে বিরাজে কুঞ্জবনে, সেই রাই আজ বনে বনে, একি হলে বৃন্দবনে, যাব কোন বনে, হারায়ে সেই বন-বিহারী, প্যারী হলেন বনচারী, কি মুখে আর বনে চরি, মরি মরি প্রাণ ত্যজি ঐ পদে । আর কি বিপিন-পুলিনে গুম আসবে ফিরে, এনে গোপাল সকল গোপাল চরাবে চরে, আর কি এই বিপিনে বঁাশী, শুনবে সকল গোকুল বাণী, রাস করিবে-রাস বিলাসী, হুদন এসে হেরবে যুগল পদে ॥ அம்ன் உம் निकू-भषामनि । প্রাণ যায় এ রবে, কোকিলারবে, রুৰে প্ৰাণ আর কিসে রবে, প্রাণনাথ বিনা প্রাণ, তিলেক না রবে রবে । ভুলারে মুরলীরবে, আবা আবা ধ্বনি রবে, বাঙ্গালীর গান । এখন বঁধু রয়েছেন নীরবে ; মরি মরি কুহু কুহু রবে। এনে বনে বনে বনে, যে কুস্বরে পঞ্চম স্বরে, পঞ্চম স্বরে আর পদ না সরে, যেন মারে বনে বনে, মারে মারে সয় না প্রাণে, প্রাণ হারাতে এলাম এ কাননে, বিনা শু্যামের বঁাশীর স্বরে, কইতে কথা মুখে মা সরে যদি সরে হা হাকার রবে ॥ কয় কিশোরী আর কি স্মরি, শুন গো সরি সরি, যেন স্বরে হানে বুঝি স্মরি, বিনা সেই কিশোরীর সঙ্গ, স্বর শুনে যে হয় স্বরভঙ্গ, কোথা বা রহিল সে ত্রিভঙ্গ, হুদন বলে একি রঙ্গ স্বর শুনে যে কঁপে অঙ্গ, বুঝি প্যারা সাঙ্গ এই রবে । ঝিঝিট—খয়রা। হে কোকিলে, বসে তমালে, ডেকো না আর কৃষ্ণ বলে । এ কোন মুখের গান, নাই দুঃখ জ্ঞান, প্যারীর যে যায় প্রাণ, পড়ে অনলে ; ভ্ৰমিতেছেন প্যারী বনে বিপিনে, শুনে কুহু ধ্বনি, করে হুহু ধ্বনি, শুনে ধনির ধ্বনি, আমরা বাচনে – কৃষ্ণের পক্ষে কৃষ্ণপক্ষ তুমি কি জান না পক্ষ, তবু যে হয়ে বিপক্ষ, কমলিনীর বুকে শেল হানিলে দেখে কঁদে অলিকুল, হুইয়ে ব্যাকুল, কঁদিতেছে শুক মনের অমুখে— কন্দে সখীগণ হইয়া অজ্ঞান, তুমি সদা গান কর কি মুখে, আমরা যত ব্রজনারী, শ্ৰীহরি বিহনে মরি, স্বদন বলে, ভজলে হরি, পাওয়া যাবে অস্তকালে জয়জয়ন্তী-কাওয়ালী । দু-আঁখি মুতি করে, দেখেন হৃদয়-মন্দিরে মুরলী অধর ধরে, বিরজে রাধাকান্ত ।