পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৫১১

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রূপচাঁদ পক্ষী। সে বিভু অব্যক্ত, জগত ব্যাপ্ত, এই দ্বীপ সপ্ত, লিপ্ত তিনি নন। কোথায় আছেন তিনি, কে কহিতে পারে, ভূধরে সাগরে কিম্বা মহীপরে, আকাশে পাতালে সপ্ত তলাতলে, কোথাগেলে মেলে, নাহি নিদর্শন। যন্ত্রে অন্ত্রে শাস্ত্রে অষ্টাদশ পুরাণে, শ্ৰীমদভাগবত গ্রন্থ রামায়ণে, চণ্ডী কাশীখণ্ডে, পুরাণ ব্রহ্মাণ্ডে, চৈতন্যমঙ্গলে আছে কি সেই জন ॥ রামাত নিমাত আর ব্রকদ ব্রহ্মচারী, কৰ্ত্তাভজা নেড় নেড়ী পুরি গিরি, বৌদ্ধ জৈন সংসার ত্যাগ করি, ফকিরী জপী তপী ঋষি, অনশনে বসি, সেই গুণরাশির পায় না দরশন। নিদেহ নিগৃহ নাহি পদপাণি, সৰ্ব্বাত্মায় আছেন আত্মারাম তিনি, ক্ষিত্ত্যপতেজ আদি এই পঞ্চে আনি, কহে খগমণি, করেন মহাপ্রাণী আপনি স্বজন ॥ মিশ্র বাহার-একতাল।। দেহ গেছে পঞ্চভূত। ( আছে স্থিত) জানহ নিশ্চিত, কেন নশ্বর দেহেতে অহঙ্কার এত। জান ত এ দেহ মৰ্ম্ম, অপ বায়ু ভেজে জন্ম, অস্থি মেধ চৰ্ম্ম, ( দেহধৰ্ম্ম ) কুস্বত্র দেহু-ক্ষেত্র, মল মুত্র পাত্র মিত্র, আছয়ে পুর্ণিত। প্রাজ্ঞ বিজ্ঞ বুদ্ধিমান, বিদ্যাবান ধনবান, কর অভিমান, ( করি বহু দান) কিমাশ্চর্ধ্য এ মাংসৰ্য্য, ক্রমে ঐশ্বৰ্য্য রাজ্য বীৰ্য্য হবে হত ॥ তুমি কার, কে তোমার, কর নাহে এ বিচার, এ সংসার সং সাজা সার ; * কলাত্র জ্ঞাতি গোত্র, পিতা পুত্ৰ লৰে নাকে তত্ত্ব, 8') ఏ মনুজের কায়া ধরি, অজ্ঞানে দিবা শর্করী, আছ আমরি (তীরে পাশরি) আমি করে কব হায়, গুটি পোকার প্রায়, আপন লালে জালে আপনি হও হত ॥ নশ্বর হে এ দেহট, তার ভিতরে ভূত পাঁচটা, মরি কি নেট (দ্বার নট) দুর্জন ছটা বড় ডানপিট, মণিকোটার ভিতর প্রবেশ নিয়ন্ত । ভাঙ্গ স্বরে দিয়ে খুঁচি, ইচ্ছা কর অধিক বঁচি, এই আঁচাত্মাচি, ( অভিরুচি) গোড়া ঢিলে, পড়ছে হেলে, বলে লাঠি ধরে ঠেলে রাখিবে কত ॥ এই দেখ এই নাই, নিশ্বাসে বিশ্বাস নাই, বেদের বাজি ভাই, ( সব দেখতে পাই ) প্রতি পলে যেটা টলে, পাপ বোঝা মহামায়া কেন রে এত ॥ উন্মত্ত যুবা বয়সে ঘুটে ৫পাড়ে গোবর হাসে, বলিনা ত্রাসে, (পাছে দোষে ) একটা যাচ্ছে, চখে দেখছে, তখন হাসছে খেলছে নাচছে উম্মদের মত ॥ ব্যবসায়ী তেজা রাজ, দাস দাসী কুবি প্রজ, বস্তু ভূতের বোঝা, ( হয়ে সোজা) এ জগং সব, সব অনিত্য, সত্য পদার্থ বিভু উৎসত ॥ ভূতে দেয় ভুতেরে মত, যেন কানা দেখায় কানায়ে পথ, এইরূপ প্রায় জগং, ( বাধি গং) চলনি ভদ্র ছুঁচে ছিদ্র, হতে চায় রুদ্র, ধৰ্ম্ম কৰ্ম্মে রত ॥ পুরুষে ভূতপত্নী প্রেতিনী যে জীবের অধম প্রাণ ঘোর অভিমানী, (শিরোমণি ) কহে খগ-রাজ, মস্ত্রে করে সোজা, ঐগুরু ওঝা, ঝেড়ে নামামৃত ॥ മ്മജ്ഞ