পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৫১৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


রসিকচন্দ্র রায় । সিন্ধু ভৈরবী—ঠেকা । তবে কেন মজায় গো বাণী। সদা ভালবাসি বাণী, আমরা বাণীর দাসী । শুনিলে বাণীর গান, শীতল দাসীর প্রাণ, তেরাগিয়া কুলমান, হয়েছি উদাসী। আমরা করি বাণী বঁাশী, বাঁশী দেয় গলে র্যাসি, কাছে ཨ་[་། হাসি হাসি, কত কহে প্রতিবাসী ॥ ধট—কাওয়ালী । সদা মনে পড়ে সেই কালো, কিবা কালো । কাল রূপে আলো করে, নিকুঞ্জে এক লো। একে ত চিকণ কালো, ভালে কিবা অলকা লো, হেরিলে কুলেতে ভার থাকা লো— চাদে দিয়েছে যেন ঢাকা লো— কালো রূপে নাশে কালে, কেমনে ভুলিব কলে, যে তার বাণীতে সদা ডাকা লে৷ মুরট মল্লার-কাওয়ালী । ৰাসনে খানে প্যারি, ভজিতে ত্ৰিভঙ্গে । রঙ্গে ভঙ্গে গো- কুল ভাসাবি কেন কলঙ্ক তরঙ্গে গোকুলে যে চরায় গাভী, কি গুণে তার গুণ গাবি, সকলে রাগবি রস রঙ্গে ;—কলঙ্কিন রাই, লাজে মরে যাই, করিস রঙ্গিণি, গমন কোথা সঙ্গিনীর সঙ্গে ॥ श्रृङ्खो–बषाभाम । বিপত্তিভঞ্জন হরি, বিপদকালে কর ত্ৰাণ। অসিতে নাশিতে প্রাণ, আসিতেছে ঐ আয়ান। রাখ হে শুম রাধিকারে, তোমার বিনে সাধি কারে, এনে প্রেম অধিকারে, भछाहे७ न|७दान । ঐ দেখ হে রঙ্গে ভঙ্গে, কুটিলে আসিছে সঙ্গে, কে যেন আমার অঙ্গে, হানিছে গরল বাণ ;– শুন হে করুণাসিন্ধু, চরণে ধরেছে ইলু, আজ বধু কৃপাৰি, দাঙ্গীরে কর হে দান। | 8a.○ খাগাজি—মধ্যমান । কুটিলে, কৈ সে নতনয়—তা নয় তা নয়। হাস্তমুখে ব্ৰহ্মময়ী ঐ যে গুমা দৃপ্ত হয়। হরহদি নিবাসিনী, ভবান্ধকারনাশিনী, বিতরিছে নিস্তারিণী, স্বকরে অভয় ॥ ললিত-একতাল। কি রূপ মাধুরী শ্ৰীবৃন্দাবনে। রাধাকৃষ্ণ বিরাজিত একাসনে ;— কুঞ্জবনে তরুগণ নম্ৰমান যুগলৰূপ দরশনে। মেঘে যেন সৌদামিনী, তামের বামে কমলিনী ; কিবা শোভা পায় রে, যুগল পায় রে, হেরিয়ে মাধুর্য্যরূপ মন ভুলে যায় রে ;– কি কুঞ্জ নিকুঞ্জ শোভা, ত্রিভুবন মনোলোভ, যেন কোটিচন্দ্র আভা, উদয় চরণে। ধন্ত পশু পক্ষিগণ, তারা করে নিরীক্ষণ, যুগল বরণ রে-ধন্ত বৃন্দাবনরে, যথা অবতীর্ণ হন লক্ষ্মীনারায়ণ রে— ভুবনমোহিনী সঙ্গে, ভুবনমোহন রঙ্গে, বিরাজ করিছে যেন, রসিকের মনে ॥ আলাইয়া—একত্তালা। কুলকামিনী, এ ঘোর যামিনী,— যোগে কেন এলাম সাধের কুঞ্জে । জেনে আয় গো বৃন্দে, লইয়া গোবিন্দে, স্বজনি রজনী কে ধনী ভুঞ্জে। শ্ৰীকৃষ্ণ-চরণ-পঙ্কজ প্রয়ালী, সঞ্চিত সম্পদে বঞ্চিত এ দাসী ; পাদপদ্ম মনোহর, গাথা সুধাকর, उ८उ मधूकद्र ७म् ७म् ७म् ७८७ ॥ ॐाँच्दांख-ग्नषTमांब ।। মানিনি গো, আর কি মান শোভা পায়। জাহ্নবী উদ্ভব র্যার পায়, সে পড়ে তোর রাঙ্গা পায়। মানে ক্ষমা চেয়ে চেয়ে, কৃষ্ণ আছে বদন চেয়ে, নিদয়া নাই তোমার চেয়ে, ¢छरत्र (पधं--७ कि पांश ।