পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৫৯২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


too সুখে থাকৃবে বলে শিশু ছানা, বিছা তার কোমল বিছান, এ কোথা হলো জান, রচনা-কৌশল রে । নাই রোগ নাই কোনো বালাই, ন চাই ঔষধ বৈদ্য দাই, সক্ষম স্বচ্ছন্দ সদাই, সৰ্ব্বদাই নিৰ্ম্মল রে ;– তোর, যেমন চতুর চূড়ামণি, সতর্ক সাবধান ওমনি, তেমনি অনুসন্ধানী, অগম্য কোন স্থল রে ॥ পালকে তিলক পরে, ভক্তের ন্তায় ভাবট ধরে, নগরকীৰ্ত্তন কি করে, বেড়াস্ বেঁধে দল রে। গান গেয়ে বেড়া যথা তথা, ৰষ্ট দিলে ও মিষ্ট্র কথা, এ প্রথা শিখলি কোথ, দেবতায় বিরল রে ॥ কতু এক পদে নগ্ন, মুদে চোকু ধ্যানে মগ্ন, সঞ্চয় না করিস্ অন্ন, রত্ব যেন মল রে । দারুণ শীত গ্রীষ্ম বর্ষাদিতে, সমভাব পাই দেখিতে, জ্ঞান লভে শুকপাখীতে, সেই শিক্ষার কি ফল রে ॥ গুণে হো মহৎ ভারি, নোস্ কারো ঈর্ষাকারী, এ লোকে উলটে তারি, নর নারী খল রে । বুঝি, তাইতে যেতে চনে কাছে, লোক ছেড়ে বাস করি গাছে, গাছ তাই আহলাদে নাচে, দুলিয়ে শাখা-দল রে ॥ কি পুণ্যে পুৰ্ব্বমত, তোরা স্বধৰ্ম্মে রত, সতত দৃঢ়ব্ৰত, স্বজাতিবৎসল রে। কারে কুচ্ছতে নাই উচ্চমতি, উচ্চে তোদের স্থিতি গতি, নীচে নীচ হয়ে অতি, আমরা রই কেবল রে ॥ কে বলে তোদিকে হীন, তোরাই সুখী সৎ স্বাধীন, নাই প্রভু দাস ধনী দীন, ভাগুর ভূমণ্ডল রে। তোদের, পবিত্র দম্পতী-প্রীতি, পড়েছিস্ কি ধৰ্ম্মনীতি, পাঞ্জঙ্কি পুরাণ পুথি, চৌপাঞ্জ জঙ্গল রে। கை বাঙ্গালীর গান - ' ' ' পিলু-পোস্ত। শুনতে সুখ সকলি কুখ সংসারে সকলি জ্বালা । রোগের জ্বালা শোকের জ্বালা, চিন্তা-জরে মনের জ্বালা ॥ ঘরে বাহিরে জ্বালা, সুজন দুর্জনের জ্বাল, জ্ঞাতি-কুটুম্বের জাল, বিষম জ্বালা বাক্য-জ্বালা। হ’লে জাল। নইলে জ্বালা, রইলে জ্বালা গেলে জ্বালা, জ্বালায় প্রাণ বাশাপলা, জলে গেলে না জুড়ায় জ্বালা ॥ প্রথম আগুনের জাল, শষেও আগুনের জ্বালা, মাঝেও আগুনের জ্বালা, আগুন-জ্বালায় ভঠর-জ্বালা । অধীনের অধিক জ্বালা, ততোধিক ঋণের জ্বালা, চার চালার কত জ্বালা, সংসার-জাল ভরা জ্বালা ॥ বিষয়ের বিষের জ্বালা, তার কাছে কিসের জ্বালা স্থান দিয়ে শীতল পদে, ঘুচাও হরি, পাপের জালা ॥ পিলু-পোস্ত । মিছে মুখ মিছে শোভা মিছে ভালবাসাবালি। মিছে সাধ মিছে আহলাদ কাল সাধে বাদ প্রমাদরাশি ॥ মিছে ধন মিছে স্বজন, মিছে এ জীবন যৌবন, যৌবন বন-ফুলের মতন, মুলে পতন হলে বাসি। মিছে ভাব মিছে ভঙ্গী, মিছে জাকজমক জঙ্গী, কে হবে সঙ্গের সঙ্গীকোথা বা রবে দাস দাসী। মিছে সমাদর সন্মান মিছে অহং অভিমান, কেশে যেই পড়িবে টান,শুকাবে মুখ যাবে হাসি, জগতের উপর নীচে যা দেখ সকল মিছে, ছাড় রে মিছের পিছে, ধর রে সেই অবিনাশী। निकू ६च्द्रशे-८°षिां । ৰর সাজিয়ে ঢোল বাজিয়ে লোক জাগিয়ে জানিয়ে যায় । আজ শ্বশুর-বাড়ী সোণার বেড়ি, পরিভে চলিলাম পায় ॥