পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৭৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


n

অগে নবীন গৌরবে নৰ বকুল-সৌরeে, ১৯4 মলয়বীজনে জাগ নিভৃত নির্জনে ।

জাগ আকুল ফুলসীজে জাগ মূহু কম্পিত লাজে, iম হৃদয়-শয়ন-মাঝে, শুন মধুর মুরল বাজে, .াম অস্তরে থাকি থাকি—”সখি জাগে জাগো” । বেহাগ—চোঁতাল। ভয় হতে তব অভয় মাঝে নূতন দাও হে। দীনতা হতে অক্ষয় ধনে,সংশয় হতে সত্যসদনে, জড়ত হতে নবীন জীবনে নতন জনম দাও হে। আমার ইচ্ছা হইতে প্ৰভু তোমার ইচ্ছামাঝে, আমার স্বার্থ হইতে প্রভু তব মঙ্গল কাজে, অনেক হইতে একের ডোরে, সুখ দুখ হতে শাস্তি ক্রোড়ে, আমা হতে নাথ তোমাতে মোরে নূতন জনম দাও হে ॥ s mnsks namms কীৰ্বনের মুর। ভালবেসে সখি নিভৃতে যতনে আমার নামটি লিখিয়ে তোমার মনের মন্দিরে। আমার পরাণে যে গান বাজিছে তাহারি তালটি শিখিও তোমার চরণ-মাঞ্জারে। ধরিয়া রাখিও সোহাগে আদরে আমার মুখর পাখিটি, তোমার প্রাসাদ-প্রাঙ্গণে । মনে করি সখি বাধিয়া রাখিয়ে আমার হাতের রাকীটি তোমার কনক-কঙ্কণে । আমার লতার একটি মুকুল তুলির তুলিয়। রাখিয়ে তোমার অলকবন্ধনে। আমার স্মরণ-শুভসিদূরে একটি বিন্দু আঁকিয়ে তোমার ললাটচন্দনে। আমার মনের মোহের মাধুরী মাখিয়া রাখিয়া দিওগো তোমার অঙ্গ-সৌরভে। আমার আকুল জীবন মরণ টুটিা লুটিয়া নিয়োগো তোমার অতুল গৌরবে। க.ை खिणक वांटबॉब्र-रद्रकांक । প্রতিনি তব গাধা গাৰ আমি হুমধুর, তুমি মেছ মোরে কথা তুমি দেখ মোরে স্বর! | \. তুমি যদি থাক মনে, বিকচ কমলা, তুমি যদি কর প্রাণ তব প্রেমে পরিপুর। W তুমি দেহ মোরে কথা তুমি দেহ মোরে স্বর l. তুমি শোন যদি গান আমার সমুখে থাকি, স্বধা যদি করে দান তোমার উদার অধি। তুমি যদি দুখ পরে, রার্থ কর স্নেহভরে, তুমি যদি মুখ হতে দস্ত করহ দূর । তুমি দেহ মোরে কথা তুমি দেহু মোরে স্বর। কল্যাণ–চোঁতাল । * পূর্ণ আনন্দ পূর্ণ মঙ্গলৰূপে হৃদয়ে এস, এস মনোরঞ্জন । আলোকে আঁধার হেীক চূর্ণ, অমৃতে মৃত্যু কর পূর্ণ, কর গভীর দারিদ্রভঞ্জন ॥ " সকল সংসার দাড়াবে সরিয়া, তুমি হৃদে আসিছ দেখি জ্যোতিৰ্ম্ময় তোমার প্রকাশে শশী তপন পায় লাজ সকলের তুমি গৰ্ব্ব গঞ্জন ॥ கம் আশাবরী-টোঙ্কি-তিওট। নিন ত চলি গেল প্রভু বুথ, কাতরে কাদে হিয়া । জীবন অহরহ হতেছে ক্ষীণ, কি হলে এ শূন্ত জীবনে। দেখাব কেমনে এই স্নান মুখ কাছে যাব কি লইয়া। প্রভু ংে যাইবে ভয়, পাব ভরসা, তুমি যদি ডাক এ অধমে । বাহার-কাওয়ালী। দেশে দেশে ভ্ৰমি তব দুখ গান গাহিয়ে— নগরে, প্রাস্তরে, বনে, বনে, অশ্রুবরে নয়নে পাষাণ হৃদয় কাদে সে কাহিনী শুনিয়ে। জ্বলিয়া উঠে অযুত প্রাণ, একসাথে মিলি এক গান গায়, নয়নে অনল ভায়, শূন্ত কঁপে অভ্ৰভেদী বঞ্জ নির্ধেৰে ভয়ে সবে নীরবে চাছিয়ে। .

  • { }, -