পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৭৮৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বাঙ্গালীর গান । وهج وه ، যে চায় ধারে পায় ন৷ তারে প্রেমের একি উটে খেলা । যে ঘারে, চায়না ফিরে, সেই ওলো সই ঘটায় জ্বালা ॥ প্রেমিক অলির কমলিনী, অলি বিনে পাগলিনী, গুবরে পোকার ভ্যানভ্যাননি, ক’ল্লে, লে সই, বtালাপাল,— পলালো আকুল হন্থে প্রাণের ভয়ে কমলবালা ॥ ==ćαμub ওলো, ভাঙ্গবো আজ লুকোচুরি, ধরবো ফকিরে। নাগর পড়ে কিনা পড়ে দেখি নারীর ফিকিরে। জেগে আজ সারা রাতি, খুঁজি বন পাতি পাতি, আছে কোথা ছল পাতি, চল চল দেখিরে,— ভাসাব সোহাগ সবে সখা সখীরে ॥ বের আঁধারে ঘুমায়ু ধরণী । অগণন পার্থীগণ, মুদিত লোচন, প্রকৃতি মলিনবরণী । মলিনে মলিন হয়ে, হৃদয়ে নিরাশা ব’য়ে, এসেছি বিদায় নিতে মনোমোহিনি। কবনা প্রেমের কথা দিবনা প্রাণে ব্যাথা, শেষ দেখা দেখে যাব ওই মুখখানি,— ভালবাসা রেখে যাব,(একবার) দেখা দাও ধনি ৷ মঞ্জু বুজনি, আও সজনি,গাও মধুর মিলন-গান। নিরখ নিরখ, প্রেম-পরখ সখিসখ হুই এক প্রাণ উজল চাদ কিরণ রাশি, ভারত কত হাসি হাসি, পিয়ত নিয়ত দুৰ্ছ পিয়াসী, রূপ-অমিয় খুলি নয়ান হৃদয়-যন্ত্র-তন্ত্ৰ বাজে, প্রেম-পুত্তলি যুগল সাজে, প্রেম দুহুঁকি প্রাণমাঝে, তুলত অতুল নব তুফান, দুহুঁকো দুহুঁ বাধি বাহু করতি কতহি প্রেমদান ॥ ቅ காம்க তোমাকে প্রেম-গোয়ালে রাজার হালে রেখে দেবো । কোরে যতন, নিত্য নূতন, কচি কচি খাপ খাওয়াবো। চারটি খুরে ধোরে সাধি, . কয়, নাগর, আমার শাদী, | i | | আমি তোমার প্রেমের বাদী, ঠাণ্ড জলে গা ধোয়বো ॥ অচেনায় চিনিয়ে দিয়ে, মন আমার কে ছিনিয়ে নিলে । অচেনায় আজকে আমায়, বিনিমূলে কিনিয়ে দিলে। অচেনায় দেখলে পরে,প্রাণ,যে কেন এমন করে, খুলেতা বলবো তারে অচেনা যদি মিলে । অচেনায় মন কেন চায়, অচেনায় বলবো খুলে ॥ নূতনরূপে নিতুই নতন প্রেমের তুফান বন্ধু । রূপ যেখানে, প্রেম সেখানে আপন-হারা হয় | চোখে রূপ যেমন লাগে, ঘুম ভেঙে প্রেম আমি জাগে, ভাঙা ভাঙা ভাব সোহাগে স্বপন-কথা কয় ;— রূপে প্রেমে কোলাকুলি হুদয়ে হৃদয় ॥ ঘুমস্ত চাদের ওই নিরস্ত জোছনা। শেষ হাসি হাসি নিশি ও হাসি মুছন ॥ আধ ঘোর আধ ছায়া, প্রকৃতি রাণীর কায়, জোছনায় দেখা যায়, সে কায় ঢেকোন ॥ প্রকৃতির ছেলে মেয়ে, ফুলেরাশিশিরে লেয়ে,চাদের জোছনা পিয়ে, এখনো হাসে ;— জোছনার হাসি গেলে, ও হাসি রবে না। ভাবছি তোমায় ভাবের ভাবে, সে ভাব ভেবে বলতে নারি। যতই ভাবি, ততই ডুবি, ভাবের সাগর গভীর ভারি ॥ কি এক ভাবের নেশার বোরে, ভাবিয়ে দিলে তুমি মোরে, দেখছি চেয়ে ভাব-বিভোর, ভাবে ভরা মুখ তোমারি ;– J এ ভাবে ভাবের অভাব ঘটিও নাহে বিভাবরী ॥* এত করে পায়ে ধ'রে, তবু তারে পেলেম্‌ না। প্রাণ ভর প্রেম দিয়ে, তবুও তার হ’লেম না ।