পাতা:বাঙ্গালীর গান - দুর্গাদাস লাহিড়ী.pdf/৮৮০

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


| ۹ww. আশার আশ্বালে মুগ্ধ হয়ে, চলেছ কোথা ধেয়ে, মৃগ-তৃফিকায় তৃষ্ণ কি হয় নিবারণ ॥ বিবেক বুদ্ধি হদয়, সকলি করিলে ক্ষয়, অগস্তু কালের ধন अथूल फूषन | সিদ্ধ হল না কোন কামনা, আর হুল বৃথা লাঞ্ছনা, কিছু পেলে না করিলে মুধু অন্বেষণ৷ * জংলী-রূপক । দয়াল বলে, হৃদয় খুলে, জক রসনা। পুরবেচিত্তের চির-ৰসন্ন৷ যদি বড়ই দুঃখেতে পড়ে, ডাক রে ঐ নাম ধরে, চুখে কখনি দুঃখ-জ্ঞান হবে না। ভক্তিতে অটল হয়ে, ঐ নামে থাক নিৰ্ভয়ে, কৃতস্তম্ভয় অস্তরে স্থান পাবে না। কোন অদৃপ্ত শক্তি সঞ্চারে, হিমাদ্রি টলিতে পারে টলে সকলি, ভক্তির ভেলী টলে না । বে হ’তে জগতে ভাসা, হৃদয়-জগতে আশা, জগত সে হতে নাম করে ঘোষণা । বিশ্ব ঐ নামে বঞ্চিত্ত হ’লে, অতল তমোজলে, যাবে ডুবিয়ে চিহ্নও আর রবে না। *

  • ्बऎब्रह्मtब्र-७ारुखiणः ।

নাথ, ক’রে রাখি নিবেদন । खनिः न। ख्रश्त्र, निषांश्-श्रंभनि, করিবে করে বন্ধন ॥ মায়ামোহে আমি আছি অঙ্কপ্রায়, সজা সঙ্গে æíáp দেখি না তাহাঙ্ক, जदैशम्राबघ्नcउiबांद्र याथांबू,छाश् िउषाबियखांजन खङ्य़ांख् खण नििब् षाङ्गुन्, কিছুই না রূৰে মম আয়োজন, আৰ্যর্থ সন্ধানে, বিষ-দিগ্ধ বাণে, বিধিবে বিহঙ্গমস্থা। শূন্ত পড়ে যে, . দেহের পিঞ্জর, सििप्क शृङ्ख्यञ्जन, एंदेरद छैन, আবাস আৰা, হইবে সাধার, মুৰি আমি নয়ন , সাধন সাধারণাহিক সশ্বল, কৈলাঙ্গল চরণ-কমল, জডি ডিসিপিডি,কলছি আমি প্রবণ | • কাচা সোণা মাখা बाजांनीक अन। অধরে আমার দিয়ে নাম-সুধা, পরিতৃপ্ত করে চির তৃষ্ণাঙ্গুধা, অকিঞ্চন বলে, তুলে নিয়ে কোলে, छूक्लkद गभंजीकन ॥ * প্রসাদী সুর-একতাল। । , হেলায় আমি যাব তীরে।—মগে, তোমার ভক্তির ভেলা দৃঢ় ধরে। আমার ভাঙ্গা হলে, ছেঁড়া পালে, ভয় করি না এ দুস্তরে। আমি তরঙ্গের সঙ্গে মুখে, ভাসব তোমার কৃপা স্মরে ॥ যদি হাবুডুবু খাই গে কখন, ডাকুৰ তোমায় উচ্চৈঃস্বরে। তখন দেখা দিও—দয়ামগ্নিদেখব তোমায় আঁখি ভরে। ঝিঝিট-একতাল।। আয় আয় নিমাই, দুখিনীর জীবন, একবার আয় রে দেখে, জুড়াই হুনয়ন। কি ভাবে বা এলি, কেন চলে গেলি, মা বলে কেন রে ছলিলি এমন ॥ হরি হরি বলে, কি খেলা খেলিলি, নদের শত প্রাণে কি সুধা ঢালিলি, সবায়ু পাগল করে, আপূনি পাগল হলি, শেষে ডালি দিলি মায়ের প্রাণ-ধন । নবীন বয়সে এ কিরে পিয়াস, কার কথায় কি মনে লইলি সন্ন্যাস, ত্যজি গৃহ-বাস চলিলি প্রবাস, আর কিরে মা বলে ভাকিবি কখন। স্বরে বিষ্ণুপ্রিয় সোণার পুতুল, অফুটন্ত ফুল, কি ভাবে তুই বাছা হইলি আকুল, আগুনে সে ফুল দিলি বিসর্জন।। স্বরে কি রে তোয় প্রাণের হরি নাই, তবে কেন স্বরে বুলি না নিমাই, হরিময় তোরে বলিছে সবাই, (কেবল) আমার ফাকি দিলি পেয়ে জৰিকল । A. r