প্রধান মেনু খুলুন

পাতা:বিচিত্রিতা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/২৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


স্বষ্টির প্রথম স্মৃতি হোতে সহসা আদিম স্পন্দ সঞ্চরিল তোর রক্তস্রোতে তাই এ তরুতে তৃণে প্রাণ আপনারে চিনে হেমন্তের মধ্যাহ্নের বেলা,— মৃত্তিকার খেলাঘরে কত যুগ-যুগান্তরে হিরণে হরিতে তোর খেলা ॥ নিরাল মাঠের মাঝে বসি’ সাম্প্রতের আবরণ মন হ’তে গেল দ্রুত খসি’ আলোকে আকাশে মিলে যে-নটন এ নিখিলে দেখে তাই আঁখির সম্মুখে, বিরাট কালের মাঝে যে ওঙ্কারধ্বনি বাজে গুঞ্জরি’ উঠিল তোর বুকে ॥ যত ছিল ত্বরিত আহবান পরিচিত সংসারের দিগন্তে হয়েছে অবসান । বেলা কত হোলো, তার বাৰ্ত্ত নাহি চারিধার, না কোথাও কৰ্ম্মের আভাস । শব্দহীনতার স্বরে খররৌদ্র ঝ ঝণ করে, শূন্যতার উঠে দীর্ঘশ্বাস। বিচিত্রিতা