পাতা:বীথিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৪৫

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


বীথিক স্বৰ্গস্থধাস্রোতে ধৌত হয় নিখিল গগন, যাহা দেখি যাহা শুনি তাহা যে একান্ত অতুলন। মর্ত্যের অমৃতরসে দেবতার রুচি পাই যেন আপনাতে, সীমা হতে সীমা যায় ঘূচি’ । দেব-সেনাপতি নিয়ে আসে আপনার দিব্যজ্যোতি যখন মরণপণে হানি অমঙ্গল ; ত্যাগের বিপুল বল কোথা হতে বক্ষে আসে ; অনায়াসে দাড়াই উপেক্ষা করি প্রচণ্ড অন্যায়ে, অকুষ্ঠিত সর্ববস্বের ব্যয়ে । তখন মৃত্যুর বক্ষ হতে, দেবতা বাহিরি’ আসে অমৃত আলোতে, তখন তাহার পরিচয় মর্ত্যলোকে অমর্ত্যেরে করি তোলে অক্ষুণ্ণ অক্ষয় ॥ ২৬ শ্রাবণ, ১৩৪২ শাস্তিনিকেতন ২২৯