পাতা:ভগ্নহৃদয় - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.djvu/১০

এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।
ভগ্নহৃদয় ।

 রাখিতে পারিনে হাসি!
কত কথা ক’য়ে, কত হাত ধরি,
কত শত বার সাধাসাধি করি,
বসাইল যুবা ললিতা বালারে
 বকুল গাছের ছায়,
মাথার উপরে ঝরে শত ফুল;
যেন গো করুণ তরুণ বকুল,—
ফুল চাপা দিয়ে লাজুক মেয়েরে
 ঢাকিয়া ফেলিতে চায়!
ললিতার হাত কাঁপে থর থর,
আঁখি দুটি নত মাটির উপর,
ভূমি হোতে এক কুসুম তুলিয়া
 ছিঁড়িতেছে শত ভাগে।
লাজ-নত মুখ ধরিয়া তাহার
অনিল রাখিল বুকের মাঝার,
অনিমিষ আঁখি মেলিয়া যুবক
 চাহি থাকে মুখ বাগে!
আদরে ভাসিয়া ললিতার চোখে
 বাহিরে সলিল-ধার,
সোহাগে, সরমে, প্রণয়ে গলিয়া
আঁখি দুটি তার পড়িল ঢলিয়া,
হাসি ও নয়ন-সলিলে মিলিয়া
 কি শোভা ধরিল মুখানি তার!
আমি সখি আর নারিনু থাকিতে