পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8 भैद्र कानिभ শালী তরুণ যুবক হায়দরাবাদে বাস করিতেন। কুলী খাঁর একমাত্র কন্যার সঙ্গে সেই তরুণ যুবকের বিবাহ হইয়াছিল। উত্তরকালে মুরশিদ কুলী খাঁ বাঙ্গালা বিহার উড়িষ্যার নবাব-নাজিমপদে নিযুক্ত হইলে, KBDBD DBDDD SS DBDBD DDuuD KDBDBDB BgK DBuuBBBSDBD পদোন্নতির সন্ধান লাভ করিয়া, তঁহার আত্মীয়-কুটুম্বগণও উড়িষ্যায়। উপনীত হইয়াছিলেন । এইরূপে মিরজা মহম্মদ নামক এক দরিদ্র কুটুম্ব আসিয়া সুজা খাঁর সহিত মিলিত হইবার প্রমাণ প্ৰাপ্ত হওয়া যায় । মিরজা মহম্মদের দুই পুত্ৰ-হাজি আহম্মদ এবং আলিবর্দী। উভয় পুত্ৰই বিদ্যাবুদ্ধি ও তীক্ষা প্ৰতিভায় বাঙ্গালার ইতিহাসে বিবিধ কীৰ্ত্তিকাহিনী সংযুক্ত করিয়া গিয়াছেন। তঁাচারা উৎকলের নবাব-দরবারে অল্পদিনেই সৰ্বেসৰ্ব্বা হইয়া উঠিয়াছিলেন। আলিবর্দীর পুত্রসন্তান ছিল না ; তিনি তিন কন্যাকে ভ্রাতা হাজি আহম্মদের তিন পুত্রের সহিত বিবাহ দিয়া, দৌহিত্র সিরাজদ্দৌলাকে পোস্যপুত্ররূপে গ্ৰহণ করিয়াছিলেন । হাজি আহম্মদের জামাতা আতাউল্যা এবং ভগিনীপতি মীর জাফর খাঁ এই সময হইতে আলিবর্দীর কণ্ঠালগ্ন হন। আতাউল্যার কথা অনেকেই বিশ্বত হইয়াছেন ; কিন্তু মীর জাফরের কথা চিরস্মরণীয় হইয়া রহিয়াছে । BDD gDB BBDDBDB uBD BDS OD DBD D gBg BDBD সরফরাজই তঁাহার অকৃত্রিম মেহের পাত্র ; কিন্তু নানা কারণে তিনি জামাতাকে ঠেলিয়া, দৌহিত্রকেই সিংহাসনে বসাইবার ব্যবস্থা করিয়া ইহলোক হইতে অবসর গ্ৰহণ করেন। আলিবর্দীর বাহুবলে, হাজি আহম্মদের কুটিল কৌশলে, এবং সুজা খার সৌভাগ্যগুণে, সুজা খাই সিংহাসনে আরোহণ করিলেন। তাহাতে আলিবর্দীর পদোন্নতি হইল ;' তিনিও পাটনার নবাবীপদে আরোহণ করিলেন । BDBB DDB DB DDBS BBDDD BDDBB DBDDD DBBDS