পাতা:মীরকাসিম - অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়.pdf/১৫৪

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S88 भौद्र कृiनिभ বাঙ্গালীর বাণিজ্য রক্ষার জন্য মীর কাসিম সর্বস্ব বিসর্জন করিতেও প্ৰস্তুত ছিলেন। তথাপি বাঙ্গালী মীর কাসিমকে ভুলিয়া মীর জাফরের পক্ষাবলম্বী হইল কেন ? যাহারা সিরাজদ্দৌলার সিংহাসনে শওকতজঙ্গকে বসাইবার জন্য বিবিধ চেষ্টা করিয়া, তাহাতে বিফলমনোরথ হইয়া, অবশেষে মীর জাফরের ন্যায় সুপাত্ৰকে দেশের শাসনকর্তা মনোনীত করিয়াছিলেন, স্বাৰ্থ ভিন্ন অন্য কোন চিন্তা তাহদের চিত্তক্ষেত্রে উদিত হইতে না । মীর কাসিমের কঠোর শাসন তঁহাদিগকে উত্যক্ত করিয়া তুলিয়াছিল ; মীর কাসিমের ন্যায়দণ্ড তাহাদিগকে নিয়ত সন্ত্রস্ত করিয়া তুলিয়াছিল, মীর কাসিম ইংরাজ দমন করিয়া, নিঃশ্বাস ফেলিবার অবসর পাইলেই, প্ৰজারীক্ষার্থ জমিদার দমন করিবেন বলিয়া আশঙ্কা বাড়িয়া উঠিয়াছিল। সুতরাং যাহারা প্ৰজাপীড়ক, তাহারা মীর কাসিমের অধঃপতন আকাজক্ষা করিত । যাহারা ইংরাজ-গোমস্তার গুপ্ত বাণিজ্যের অংশীদার হইয়া অর্থোপাৰ্জন করিত, যাহারা ইংরাজগোমস্তাকে উৎকোচ দান করিয়া কোম্পানীর দস্তক লইযা বিনা শুল্কে বাণিজ্য করিয়া অর্থশালী হইয়া উঠিত, যাহারা লাভের লোভে ইংরাজ কোম্পানীর দস্তক জাল করিয়া, ভৃত্যগণকে কোম্পানীর বীরকন্দাজ সাজাইয়া, নবাবেবী শুল্ক সংগ্ৰহকারী কৰ্ম্মচারিগণকে প্ৰতারিত করিত, মীর কাসিমের স্বাধীন বাণিজ্যের সুবিখ্যাত ঘোষণাপত্রে তাহাদের সকলের অন্নোই কাঠি পড়িযাছিল । তাহারা স্বযং সবল হইলে, মীর কাসিমকে সিংহাসনচু্যত করিতে কিছুমাত্র বিলম্ব করিত না ; ইংরাজেরা তাহাতে অগ্রসর হইবামাত্র এই শ্রেণীর লোকে প্ৰফুল্লচিত্তে ইংরাজের সহায়তা সাধনে অগ্রসর হইতে লাগিল। মুসলমান অপেক্ষ এই প্ৰবৃত্তি হিন্দুর মধ্যেই সমধিক প্রবল হইয়া উঠিয়াছিল। মুসলমান তরবারি হস্তে সেনাদলে প্ৰবেশ করিত, হল-কর্ষণে শস্য উৎপাদন করিত, কেহ বা সঞ্চিত ঐশ্বৰ্য্য লইয়া আলস্যে বিলাসে জীবন অতিবাহিত করিত ।