পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/২০৯

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মৌমাছিরে জুগিয়েছে মধু, বাজিয়েছে পল্লবমােমর । পেয়েছে সে প্ৰভাতের পুণ্য আলো, শ্রাবণের অভিষেক, বসন্তের বাতাসের আনন্দমিতালিপেয়েছে সে ধরণীর প্রাণরস, সুগভীর সুবিপুল আয়ু, পেয়েছে সে আকাশের নিত্য আশীর্বাদ । পেয়েছে সে কীটের দংশন । NைS বিদ্রুপবাণ উদ্যত করি এসেছিল সংসার, নাগাল পেল না। তার । আপনার মাঝে আছে সে অনেক দূরে । শান্ত মনের স্তব্ধ গহনে ধ্যানের বীণার সুরে রেখেছে তাহারে ঘিরি । হািদয়ে তাহার উচ্চ উদয়গিরি । সেথা অন্তরালোকে সিন্ধুপারের প্রভাত-আলোক জ্বলিছে তাহার চোখে । সে আলোকে এই বিশ্বের রাপ অপরাপ হয়ে জাগে । তার দৃষ্টির আগে বিরাপ বিকল খণ্ডিত যতি-কিছু বিদ্রোহ ছেড়ে বিরাটের পায়ে করে এসে মাথা নিচু । সিন্ধুতীরের শৈলতাটের পরে হিংসামুখর তরঙ্গদল যতই আঘাত করে কঠোর বিরোধ রচি তুলে তত অতলের মহালীলা, ফেনিল নৃত্যে দামামা বাজায় শিলা । হে শান্ত, তুমি অশান্তিরেই মহিমা করিছ। দান । SSV