পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/২৩৭

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


अgाख्न्म মীেন যে ছিল বক্ষে তাহার বাজুকী বীণার তন্ত্র । নব বিশ্বাসে আশ্বাসহীন শুনুক বিজয়মন্ত্র । এসো আনন্দ, দুঃখহরণ, দুঃখের দাও করিতে বরণ, মরণতোরণ পার হয়ে পাই অমর প্রাণের পন্থ । কল্যাণী, তব অঙ্গনে আজি হবে মঙ্গলকর্ম শুভসংগ্রামে যে যাবে তাহারে পরও বীরের বর্ম। বলো সবে ডাকি “ছাড়ো সংশয়, বলো যাত্রীরে হয়েছে সময়, বলো নাহি ভয়, বলো ‘জয় জয়, জয়ী যেন হয়। ধর্ম । পশ্চাৎ—পানে ফিরায়ে ডেকো না, মনে জাগায়ো না দ্বন্দ্ব, দুর্বল শোকে অশ্রুসলিলে নয়ন কোরো না অন্ধ। সংকট-মাঝে ছুটিবার কালে বাধিয়া রেখো না আবেশের জালে, যে চরণ বাধা লঙিঘবে তাহে জড়ায়ো না মোহবন্ধ । | GRafe Sees রঙিন ভিড় করেছে রঙমশালীর দলে কেউ-বা জলে কেউ-বা তারা স্থলে । অজানা দেশ, রাত্ৰিদিনে পায়ের কাছের পথটি চিনে দুঃসাহসে এগিয়ে তারা চলে । কোন মহারাজ রথের পরে একা, डीनों का शाश नां ऊँigद्ध gनन्थों । সূৰ্যতারা অন্ধকারে ডাইনে বায়ে উকি মারে, আপনি আলোয় দৃষ্টি তাদের ঠেকা । আমার মশাল সামনে ধরি না যে, ' তাই তো আলো চক্ষে নাহি বাজে । অন্তরে মোর রঙের শিখা চিত্তকে দেয় আপনাটিকা, রঙিনকে তাই দেখি মনের মাঝে । পাখিরা রঙ ওড়ায় আকাশতলে, মাছের রঙ খেলায় গভীর জলে । NSRN