পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৩১৮

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


V)00 রবীন্দ্ৰ-রচনাবলী মুহুর্তেই কি উৎসব দেবে ভেঙেদীৰ্ণ হয়ে যাবে বাশি, চুৰ্ণ হয়ে যাবে মৃদঙ্গ, ডুবে যাবে এর দিনগুলি অতল রাত্রির অন্ধকারে ? দূত বললে, ঋণে বোঝাই তোমার এই দেহ, শোধ করবার দিন এলমাটির ভাণ্ডারে ফিরবে তোমার দেহের মাটি । প্ৰাণ বললে, মাটির ঝণ শোধ করে নিতে চাও, নাওকিন্তু তার চেয়ে বেশি চাও কেন ? দূত বিদ্রুপ করে বললে, এই তো তোমার নিঃস্ব দেহ, কৃশ ক্লাস্ত কৃষ্ণচতুর্দশীর চাদ IS ANCAJ NERGJ VSNAZ GKPR e প্ৰাণ বললে, মাটিই তোমার, রূপ তো তোমার নয় অট্টহাস্যে হেসে উঠল দূত ; বললে, যদি পাের দেহ থেকে রাপ নাও ছাড়িয়ে । প্ৰাণ বললে, পারবাই, এই পাণ আমার । প্ৰাণের মিতা মন । সে গেল আলোক-উৎসের তীর্থে। । বললে জোড়হাত করে : হে মহাজ্যোতি, হে চিরপ্ৰকাশ, হে রাপের কল্পনিকরি, স্কুল মাটির কাছে ঘটিয়ো না তোমার সত্যের অপলাপতোমার সৃষ্টির অপমান । তোমার রূপকে লুপ্ত করে সে কোন অধিকারে । আমাকে বঁকাদায় কার অভিশাপে । মন বসিল তপস্যায় । কেটে গেল হাজার বছর, লক্ষ বছর- প্ৰাণের কান্না থামে না । পথে পথে বাটপাড়ি, রূপ চুরি যায় নিমেষে নিমেষে । সমস্ত জীবলোক থেকে প্রার্থনা ওঠে দিনরাত ; হে রূপকার, হে র্যাপারসিক, যে দান করেছ নিজহাতে জড় দানব তাকে কেড়ে নিয়ে যায় যে । ফিরিয়ে আনো তোমার আপনি ধন । যুগের পর যুগ গেল, নেমে এল আকাশবাণী : egyiGRK 39 368 Nig Varas: egyGN | বর দিলেম হারা রূপ ধরা দেবে, কায়ামুক্ত ছায়া আসবে আলোর বাহু ধরে তোমার দৃষ্টির উৎসবে । রাপ এল ফিরে দেহহীন ছবিতে, উঠল। শঙ্খফবনি । ছুটে এল চারি দিক থেকে রূপের প্রেমিক ।