পাতা:রবীন্দ্র-রচনাবলী (অষ্টম খণ্ড) - সুলভ বিশ্বভারতী.pdf/৩৬২

এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


YOS রবীন্দ্ৰ-রচনাবলী হিয়ায় হিয়ায় জাগল বাণী, পাতায় পাতায় কানাকানি, “SDIS (Kf, “egs (Kf পরান দিল সাড়া । এই তো আমার আপনারই এই ফুল ফোটানোর মাঝে তারে দেখি নয়ন ভীরে নানা রঙের সাজে। এই-যে পাখির গানে গানে চরণধবনি বয়ে আনে, বিশ্ববীণার তারে তারে এই তো দিল নাড়া । রাজা। কবি, ঐ তো পূৰ্ণচন্দ্ৰ উঠেছে দেখছি। কবি । দখিন হাওয়ায় যেন কোন দেবতার স্বপ্ন ভেসে এল। রাজা। শুধু দখিন হাওয়ায় ওকে ভাসালে চলবে না কবি, তোমার গানের সুরও চাই। জগতে কেবল যে দেবতাই আছেন তা তো নয় । শালবীথিকা ভাঙল হাসির বঁাধ । অধীর হয়ে মাতল কেন পূৰ্ণিমার ওই চাঁদ। উতল হাওয়া ক্ষণে ক্ষণে মুকুলছাওয়া বকুলবনে দোল দিয়ে যায়, পাতায় পাতায় ঘটায় পরমাদ । ঘুমের আঁচল আকুল হল কী উল্লাসের ভরে । স্বপন যত ছড়িয়ে পািল দিকে দিগন্তরে । আজ রাতের এই পাগলামিরে বাধবে বলে কে ওই ফিরে, শালবীথিকায় ছায়া গেথে । তাই পেতেছে ফাদ । বকুল ও আমার চাদের আলো, আজ ফাণ্ডনের সন্ধ্যাকালে ধরা দিয়েছ যে আমার পাতায় পাতায় ভালে ডালে ।